সিলেট জেলা বিএনপির নেতৃত্বে এলেন যারা

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

 

সিলেট জেলা বিএনপির নতুন সভাপতি হিসেবে আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মো. শামিম আহমদ নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) দুপুর দেড়টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত সিলেট রেজিস্ট্রি মাঠে একটানা ভোটগ্রহণ চলে। এবার নির্যাতিত ত্যাগীদের ভোটে সিলেট জেলা বিএনপির নেতৃত্বে স্থান পেয়েছেন যোগ্য রাজনীতকরাই। দলের স্থানীয় শীর্ষ তিন পদের মধ্যে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন তুখোড় রাজনীতিক আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী। সভাপতি পদে তিনি ভোট পেয়েছেন ৮৬৮টি। কাইয়ুম চৌধুরীর রয়েছে বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতৃত্বের সাথে গভীর সম্পর্ক।

অপরদিকে, সেক্রেটারী পদে নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী। সেক্রেটারী পদে ভোট পেয়েছেন ৭৯৮টি। সিলেট জেলা ছাত্রদলের একসময়ের সভাপতি ছিলেন তিনি। অত্যন্ত মেধাবী ও রাজপথের পরীক্ষিত তিনি। বনেদি পরিবারের সন্তান এমরান আহমদ চৌধুরী তৃণমুল নেতাকর্মীদের কাছে গ্রহনযোগ্য নির্ভরশীল এক চরিত্র। যুক্তরাজ্যের নাগরিকত্ব থাকার পরও দলের দূর্যোগ মুর্হুতে দেশে অবস্থান করে রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন তিনি।

কাউন্সিলরা তার ত্যাগর মূল্যায়ন করেই নির্বাচিত করেছে তাকে। এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন মো. শামিম আহমদ। ৬২৩টি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। শামীম ছাত্রদল রাজনীতি সহ দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারী হিসেবে পালন করেছেন দায়িত্ব।

সিলেট ছাত্রদলের এক সময়ের প্রতিভাবান নেতা দিনার আহমদের ভগ্নিপতি তিনি। দিনার দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ। তার নিখোঁজ ঘটনা নিয়ে সিলেটে আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছে দিনের পর দিন। এছাড়া শামীম আহমদ মেধাবী ও বৃদ্ধিদীপ্ত এক তরুণ রাজনীতিক।

এছাড়া কাউন্সিলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীদের মধ্যে সভাপতি পদে আবুল কাহের চৌধুরী (শামীম) পান ৬৭৫ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে আলী আহমদ ৫৭৩, মো. আব্দুল মান্নান ৮১ ও আ. ফ. ম কামাল ৭২ ভোট পান। আর সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট এম মুজিবুর রহমান মুজিব ৪৬৪ ও লোকমান আহমদ ৪৩৯ ভোট পেয়েছেন।

কাউন্সিলে মোট ভোটার বা কাউন্সিলর ছিলেন ১ হাজার ৮১৮ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ১ হাজার ৭২৬ জন।

Loading...