যে কারণে বিয়ের কথা গোপন রেখেছিলেন বিক্রম ভাট

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

মহেশ ভাট তাঁর সাম্প্রতিক এক সাক্ষাৎকারে চিত্রপরিচালক বিক্রম ভাটের বিয়ের বিষয়টি জনসমক্ষে আনেন। সামনে আসার পর বিক্রম নিজেই টাইমস অব ইন্ডিয়ার ই-টাইমস-কে এক সাক্ষাৎকার দেন। সেখানেই তিনি জানান কেন শ্বেতাম্বরী সোনিকে বিয়ে করার বিষয়টি তিনি গোপন রেখেছিলেন।

বিক্রম বলেন, ভাট সাহেব (মহেশ ভাট) বিষয়টি জানতেন। তিনি আমার বস আর বসরা সবকিছুই জানেন। সেই সঙ্গ আমার কাছের কিছু বন্ধুও জানতেন। আমি ঢাকঢোল পিটিয়ে সবাইকে জানাতে চাইনি। আর আমার এই বয়সে বিয়ে করাটা আসলে ব্যক্তিগত প্রয়োজন, কোনো সামাজিক আনুষ্ঠানিকতা নয়।

সাক্ষাৎকারে তিনি জানান কিভাবে তাঁর সঙ্গে শ্বেতাম্বরীর পরিচয় হয়। তিনি বলেন, এক কমন ফ্রেন্ডের মাধ্যমে আমাদের দুজনের পরিচয়। সে একজন আর্ট কিউরেটর, তাঁর একটি আর্ট গ্যালারিও রয়েছে। ওখানে একটি এক্সিবিশন হচ্ছিল এবং সেখানে আমাকে কিছু কবিতা লেখার জন্য বলা হয়। সে-ও সেখানে ছিল। ওখানে আমাদের পরিচয় হয় এক কমন ফ্রেন্ডের মাধ্যমে। এরপর…কিভাবে যেন আমরা আমাদের একটি সম্পর্কের মধ্যে খুঁজে পেলাম।

শ্বেতাম্বরীর জন্মদিনে অফিসিয়াল ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে নিজেদের সম্পর্কের জানান দিয়ে ক্যাপশনে বিক্রম লেখেন, তুমি আমার সত্তাকে আমার ভেতর থেকে বের করে এনেছ। তুমিই সে জন যে আমার হৃদয় চুরি করেছ। শুধু তুমি, শুভ জন্মদিন- আমার ভালোবাসা।

এ সপ্তাহের শুরুর দিকে মহেশ ভাট ই-টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, গত সেপ্টেম্বরে বিক্রম বিয়ে করে। তখন ছিল কড়া লকডাউন। সে আমাকে ফোনে জানাল, বস আমি বিয়ে করছি। তবে কভিড পরিস্থিতির কারণে সবকিছু্ আপাতত মোড়কের নিচেই রইল।

গোলাম, রাজ, ১৯২০, কসুর, আয়েতবার, ১৯২১- ইত্যাদি ছবি পরিচালনা করে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছেন বিক্রম ভাট।

 

 

 

 

 

সূত্রঃঃ— কালের কন্ঠ ।।

Loading...