কুলাউড়ায় খাসি জনগোষ্ঠীর পানের বাগান বিনষ্ট করে দিল দুর্বৃত্তরা

মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ার উপজেলার একটি খাসিয়া পুঞ্জিতে পূর্ব বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ সামাজিক বনায়নের উপকাভোগী কর্তৃক পান জুমের ৩০০০ গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ ওঠেছে। গত বুধবার (২৫ আগস্ট) গভীর রাতে উপজেলার কর্মধা ইউপি বেলুয়া পুঞ্জিতে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় বেলুয়া পুঞ্জির হেডম্যান হেনরী তালাং ৮ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এদিকে বার বার পানের গাছ কর্তনের ঘটনায় পুঞ্জির আদিবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কর্মধা ইউপি সামাজিক বনায়ন নিয়ে উপকারভোগী কর্মধার বাসিন্দা রফিক মিয়া, বশির মিয়,ইসরাইল আলী গংদের সাথে স্থানীয় ডুলুছড়া পুঞ্জির বাসিন্দাদের বিরোধ চলছিলো।

এরই জের ধরে ২৫ আগস্ট গভীর রাত আনুমানিক ২টার দিকে পার্শ্ববর্তী বেলুয়া পুঞ্জির প্রায় ২৫ একর জমির পানজুমের ৩ হাজার গাছ কেটে ফেলা হয়। বেলুয়া পুঞ্জির পান জুমের মালিক ও ডেম্যান হেনরী তালাং এবং পারমিত চিরামসহ ক্ষতিগ্রস্ত পাঁচ পান চাষীরা জানান, রফিক মিয়া, বশির মিয়া ও ইসরাইল আলী গংরা কর্মধার সবকটি টিলায় বসবাসরত পান জুমের ভূমি সামাজিক বনায়নের দাবি করে জোরপূর্বক দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

এজন্য পুঞ্জির লোকদের হুমকী দিয়ে আসছিলো তাঁরা। প্রায় ২ সপ্তাহ আগের ডুলুছড়া পুঞ্জির বাসিন্দাদের হয়রানী ও উচ্ছেদ করা পায়তারা শুরু করে। বনায়নের চারা গাছ বিনষ্টের মিথ্যা অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করা হয়। তাঁরা আরো জানান, আমরা পুঞ্জিবাসীরা বিষয়টি প্রতিবাদ করেছিলাম। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বশির মিয়ারা বনায়নের নামে জুম দখলের জন্য পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রাতের আধারে আমাদের পানজুমে হামলা চালায়।

এ সময় ২০ লক্ষাধিক টাকার ৩০০০ পান গাছ কেটে ফেলে তাঁরা। পরদিন বুধবার রাতে আমরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। আতঙ্কে আছি বনায়নের নামে আমাদের উচ্ছেদের পায়তারা করা হচ্ছে। সামাজিক বনায়নের উপকারভোগী বশির মিয়া ও ইসরাইল মিয়ার গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তাঁরা বলেন, বেলুয়া পুঞ্জি বনায়ন এলাকা থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দুরত্ব। সেখানে গিয়ে পানগাছ কাটার অভিযোগ ভিত্তিহীন।

বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের কেন্দ্রীয় নারী বিষয়ক সম্পাদক ফ্লোরা বাবলী তালাং বলেন, পূর্ব পুরুষদের থেকে আমরা পাহাড়ে বসবাস ও পান চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। বনবিভাগ সামাজিক বনায়ন করুক আমরাও চাই। কিন্তু বনায়নের নামে পানজুম ধ্বংস করে আদিবাসীদের উচ্ছেদের পায়তারা চালাচ্ছে একটি মহল। নিরীহ আদিবাসীদের মামলা দিয়ে হয়রানী ও হামলা বন্ধের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হোক।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপার সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবুল করিম কিম জানান, কয়দিন পর পর এভাবে পান গাছ কেটে পেলা হচ্ছে কিন্ত এর কোন সুরাহা হচ্ছেনা। রাষ্ট্র যদি মনে করে এরা তার নাগরীক তাহলে নীরব থাকা ঠিক হবেনা।

কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিনয় ভূষন রায় বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনানুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading...