চীনে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫১

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হেনান প্রদেশে প্রবল বন্যায় এ পর্যন্ত ৫১ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। ভারী বর্ষণে সেখানে সৃষ্ট বন্যায় প্রায় কয়েক মিলিয়ন বাসিন্দা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দেশটির কর্তৃপক্ষ আজ শুক্রবার এ কথা জানায়। ক্ষতিগ্রস্ত ঝিনঝু শহরের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে,

শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ৩ লাখ ৯৫ হাজার লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বন্যার ফলে ৬৫ বিলিয়ন ইয়েনের (১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) বেশি ক্ষতি হয়েছে।

বহু যুগের মধ্যে এক দিনে এত বৃষ্টি দেখেনি মধ্য চীনের হেনান প্রদেশ। আবহাওয়া দপ্তরের মতে, গতকাল মঙ্গলবার যে বেগে বৃষ্টি হয়েছে, তা অস্বাভাবিক। এক ঘণ্টায় ২০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে প্রদেশের কোনো কোনো শহরে।

যার জেরে জলমগ্ন হয়ে যায় প্রায় পুরো প্রদেশটিই। তার ওপর দুটি বাঁধ ভাঙার খবর মিলেছে। তার মধ্যে একটি ইয়েলো নদীর ওপর। হোয়াংহো নদীর ওপরের বাঁধও ভেঙেছে বলে মনে করা হচ্ছে। ফলে বন্যার পানি আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ঘটনার পরেই রাস্তায় নেমেছে চীনের সেনা। বন্যাবিধ্বস্তদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু করেছে তারা। সেনা সূত্রের দাবি, এখনো পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ পাঁচ।

তবে চীনের সরকারি টেলিভিশনের দাবি, নিখোঁজের সংখ্যা আরো বেশি। প্রায় ১০ হাজার মানুষকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এখনো মানুষকে উদ্ধার করা হচ্ছে।

হেনানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। সাবওয়েগুলোও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একেকটি সাবওয়ের ভেতর এক কোমর পানি। বাড়ি-ঘরেও পানি ঢুকে গেছে। বন্ধ রয়েছে যান চলাচল।

এই পরিস্থিতির মধ্যে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং আক্রান্তদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেন, বহু বাঁধ ভেঙে গেছে। একাধিক অঞ্চলে জল ঢুকেছে। সেনা নেমেছে।

কিন্তু পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক। বস্তুত বুধবার সকালে হেনান প্রদেশে ক্যাটাগরি তিন থেকে ক্যাটাগরি দুইয়ের বিপর্যয়সংকেত জারি হয়েছে।

 

 

 

 

সূত্র: টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

Loading...