করোনা: কোনো কর্মীর মৃত্যু হলে ৬০ বছর পর্যন্ত পরিবারকে বেতন দেবে টাটা

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

করোনা মহামারিতে ভারতের অবস্থা ভয়াবহ। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যেই ছাড়িয়েছে তিন লাখের গণ্ডি। করোনা কোনো পরিবারে শিশুদেরকে পিতৃহারা করেছে, কোথাও স্ত্রীকে স্বামীহারা করেছে। বাড়ির উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে চোখে অন্ধকার দেখছিল এইসব পরিবারগুলো। এই অবস্থায় মানবিকতার বড় দৃষ্টান্ত স্থাপন করল ভারতের টাটা স্টিল।

টাটা স্টিল ঘোষণা করেছে, করোনায় তাদের প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মীর মৃত্যু হলে ওই কর্মীর অবসর গ্রহণের বয়স পর্যন্ত পুরো বেতন পাবে পরিবার। এছাড়া মৃত কর্মীর সন্তানদের লেখাপড়ার পুরো ব্যবস্থাও করবে টাটা স্টিল। পাশাপাশি, ওই পরিবারগুলোকে যাবতীয় চিকিৎসা ও কোয়ার্টারের সুবিধাও দেবে কোম্পানিটি।

প্রতিষ্ঠানটির বক্তব্য, কর্মীদের ভবিষ্যৎ উন্নত করতে কোম্পানি সব রকম চেষ্টা চালাচ্ছে। করোনাকালীন সময়ে বিশেষ সুবিধা তো আছেই, এছাড়া ডিউটি চলাকালীন কোনো শ্রমিকের মৃত্যু হলে তার সন্তানদের স্নাতক পর্যন্ত পড়াশোনার পুরো খরচ বহন করবে টাটা স্টিল।

উল্লেখ্য, সরকারি কর্মচারীদের মৃত্যুর পরে তাদের পরিবার পেনশনের সুবিধা পায়। কিন্তু বেসরকারি খাতের কর্মীদের জন্য এমন কিছুই বরাদ্দ নেই। তবে করোনার কঠিন সময়ে টাটা স্টিলসহ একাধিক কোম্পানি যেভাবে কর্মীদের পাশে দাঁড়াচ্ছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার।

টাটা স্টিলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কোম্পানি সবসময় কর্মচারী ও স্টকহোল্ডারদের লাভের কথা চিন্তা করে। কোভিডের সময়েও কোম্পানি সমস্ত কর্মচারীদের পাশে এসে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে। এর আগেও টাটা কর্মীদের স্বার্থে এমন একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে।

 

 

সৌজন্যে :— ঢাকা পোস্ট

Loading...