অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার নিয়ে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্রমবর্ধমান ‘অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স’-এর ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করে আগামী প্রজন্মের অ্যান্টিবায়োটিকের প্রাপ্যতা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন। এ জন্য আন্তর্জাতিকভাবে সমন্বিত গবেষণা ও বিনিয়োগের পরামর্শ দিয়ে তিনি এই বলে সতর্ক করেছেন, অন্যথায় বিশ্বকে করোনা মহামারির চেয়ে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হতে পারে।

গতকাল শুক্রবার রাতে ‘ওয়ান হেলথ গ্লোবাল লিডার্স গ্রুপ অন অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স’-এর যাত্রা শুরুর অনুষ্ঠানে কো-চেয়ারের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ সতর্কতা উচ্চারণ করেন। তিনি গণভবন থেকে ভিডিও সংযোগের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সম্মিলিত বৈশ্বিক উদ্যোগ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও), জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা এবং ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন ফর অ্যানিম্যাল হেলথের (ওআইই) উদ্যোগে বৈশ্বিক এই প্ল্যাটফর্ম গড়ে উঠেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সন্দেহ নেই যে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স মানুষ ও প্রাণী উভয়ের জন্য একটি বিশ্ব স্বাস্থ্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিপজ্জনক খাদ্য উৎপাদন আমাদের বিপজ্জনক ফলাফলের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’ তিনি জনগণের স্বাস্থ্য, প্রাণী এবং নিরাপদ খাদ্য ও ফসলের উৎপাদন এবং পুরো পরিবেশের জন্য ঝুঁকির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অ্যান্টিবায়োটিকের অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার, ভুল ডোজ এবং সামগ্রিকভাবে দুর্বল সংক্রমণ প্রতিরোধ ক্ষমতার ফলে মারাত্মক পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম। আমাদের সবার জন্য নতুন প্রজন্মের অ্যান্টিবায়োটিকের সাশ্রয়ী মূল্যে প্রাপ্যতাও নিশ্চিত করতে হবে।’ তিনি নতুন প্রজন্মের অ্যান্টিবায়োটিক আবিষ্কারের জন্য আরো গবেষণায় আন্তর্জাতিকভাবে সমন্বিত বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গ্লোবাল অ্যাকশন প্ল্যান দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলাদেশ ‘অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স কনটেইনমেন্ট ২০১৭-২০২২’-এর জাতীয় কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে।

‘ওয়ান হেলথ গ্লোবাল লিডার্স গ্রুপ অন অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স’ উদ্যোগের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানান।

সূত্র :— বাসস।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close