https://www.afgoiania.net/profile/daftar-23-situs-slot-online-terbaru-2022-gacor/profile

যুবলীগের কমিটিতে বিএনপি-জামায়াত জোটের প্রার্থী শান্ত

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

বিএনপি-জামায়াত জোটের প্রার্থী হয়ে ভোলা-১ আসনে সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়া আশিকুর রহমান শান্ত এবার যুবলীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য হয়েছেন।

শান্ত বিএনপি-জামায়াত জোটের এককালের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপির সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থর ছোট ভাই।

আওয়ামী লীগের কট্টর সমালোচক পার্থ অবশ্য এখন আর বিএনপি-জামায়াত জোটে নেই। আর শান্ত তার ভাইয়ের দল ত্যাগ করেছেন ২০১৩ সালে।

শনিবার যুবলীগের ২০১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়। এতে বেশ কয়েকটি চমক রয়েছে। যার অন্যতম হলেন শান্ত। তাকে যুবলীগের নির্বাহী সদস্য করা হয়েছে।

শান্ত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি মনোনয়ন জমা দেননি। আর ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদের ভাতিজা আলী আজম মুকুল প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে ভোলা-১ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে তোফায়েল আহমেদের প্রতিদ্বন্দ্বী হন শান্ত। তবে হেরে যান।

পার্থ ও শান্ত এর বাবা নাজিউর রহমান মঞ্জু ছিলেন এরশাদ সরকারের মন্ত্রী। ১৯৯৯ সালে বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে যখন জাতীয় পার্টি জোট গঠন করে, তখন তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে এরশাদ জোট থেকে বেরিয়ে গেলে নাজিউর জাতীয় পার্টি ভেঙে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপি গঠন করে জোটে রয়ে যান।

নাজিউরের মৃত্যুর পর পার্থ সংগঠনের চেয়ারম্যান পদ গ্রহণ করেন। শান্ত ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে পার্থ ঢাকা-১৭ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়াই করেন পার্থ। হেরে যাওয়ার পর ২০১৯ সালের ৬ মে তিনি জোট ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে বিবৃতি দেন।

ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যানের পরও বিএনপি ও তার শরিক দল থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নেয়ায় ‘হতবাক হয়ে’ জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন পার্থ। এর পর থেকে রাজনীতিতে পার্থর প্রকাশ্য কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি।

Loading...