অনিয়মের অভিযোগে বরখাস্ত হাজী সফিকের আব্দুল হাসিব

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

অডিটে বাধা, ম্যানেজিং কমিটির সাথে অশোভন আচরণ, অডিটে নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি, ভুয়া চাহিদা দেখিয়ে অতিরিক্ত বই নিয়ে গুদামজাতকরণ, অতিরিক্ত বেতন আদায় ও নারীঘটিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বরখাস্ত হয়েছেন সদর উপজেলার টুলটিকর ইউনিয়নের হাজী মো. সফিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাসিব।

রোববার স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি তাকে সাময়কিভাবে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং তা রেজ্যুলেশনেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বরখাস্তের নোটিশ গতরাতের মধ্যেই আব্দুল হাসিবের কাছে পৌঁছে দেয়ার কথা জানিয়েছেন স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জুনেদ আহমদ।

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে প্রধান শিক্ষক তার পছন্দের অডিট ফার্মকে দিয়ে কাজ করিয়ে নেন নিজের ইচ্ছে মতো। এ অবস্থায় বর্তমান ম্যানেজিং কমিটি অডিট করতে চাইলে তিনি নানভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেন। প্রয়োজনী নথিপত্র না দেওয়ায় ম্যানেজিং কমিটি তাকে বার বার এ বিষয়ে তাগাদা দিলেও তিনি কমিটিকে পাত্তা দিচ্ছিলেন না। এমনকি তার ভার্সিটি পড়–য়া মেয়ে স্কুলে এসে ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের লাঞ্চিত করেন। তিনি চেয়ার-বেঞ্চ ভাঙার চেষ্টা করেন লাত্থি দিয়ে। অশ্লীল ভাষায় গাগিালাজও করেন। তাছাড়া ভুয়া চাহিদা দেখিয়ে অতিরিক্ত বই নিয়ে গুদামজাত করেন। এর কারণও তিনি ব্যাখ্যা করতে পারেন নি। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বেতন আদায় এবং নারীঘটিত অভিযোগও তুলেছেন কমিটির এক সদস্য।

এসব বিষয়ে রোববার ম্যানেজিং কমিটির এক সভা স্কুলটির শিক্ষানুরাগী সদস্য ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেনের উপস্থিতে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় তাকে এসব বিষয়ে প্রশ্ন করলে কোন সদুত্তর দিতে না পেরে অসুস্থতার কথা বলে স্কুল ছেড়ে চলে যান। এরপর কমিটি তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানিয়েছেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জুনেদ আহমদ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close