এমসি কলেজে গণধর্ষণ : দিরাইয়ে রবিউলের বাড়িতে অভিযান

দিরাই প্রতিনিধি::

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা রবিউল হাসানকে গ্রেপ্তার করতে তার গ্রামের বাড়ি দিরাইয়ে অভিযান পরিচালনা করেছে পুলিশ। আজ শনিবার (২৬শে সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার জগদল এলাকায় তার গ্রামের তার বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে দিরাই থানা পুলিশ।

রবিউল হাসানের গ্রামের বাড়ি উপজেলার জগদল ইউপির বড়নগদীপুর গ্রামের বাসিন্দা। সে মূলত সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকার বলয়ের ছাত্রলীগ নেতা ও এমসি কলেজ শাখা ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’র সভাপতি।

রবিউলের এমন ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন জগদল ইউপি চেয়ারম্যান শিবলী আহমেদ বেগ। তিনি জানান, এই ন্যক্কারজনক খবরটি শুনার পর থেকেই গ্রামসহ ইউনিয়নবাসী তার শাস্তির দাবীতে করছেন। ঘটনায় জড়িত যেই হোক তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ ব্যাপারে দিরাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম জানান, ধর্ষক রবিউলের ন্যাক্কারজনক বিষয়টি আমলে নিয়ে তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি। সে যদি উপজলেয়ায় এসে থাকে তাহলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।

প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার (২৫শে সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করেছে মহানগর ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। অভিযুক্ত এসব কর্মীরা সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকারের অনুসারী বলে জানা গেছে।

এদিকে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে এসএমপির শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নির্যাতিত ওই তরুণীর স্বামী মাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলো- এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর, শাহ রনি, অর্জুন, মাহফুজ, রবিউল ও তারেক।

এদিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুরের রুম থেকে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (২৬শে সেপ্টেম্বর) সকালে পুলিশ বাদী হয়ে সাইফুরকে আসামি করে অস্ত্র আইনে এ মামলা দায়ের করে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close