শতবর্ষের যাত্রী ছাউনি রক্ষার দাবিতে কানাইঘাটে ইউএনও’র কাছে অভিযোগ

কানাইঘাট প্রতিনিধি ::
সিলেটের কানাইঘাট পৌরসভার বায়মপুর খেয়াঘাটের শতবর্ষের পুরাতন বাস-সিএনজি স্টেশন ও যাত্রী ছাউনি রক্ষার দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। বাস-সিএনজি স্টেশন ও শতবর্ষের যাত্রী ছাউনি পাথর ব্যবসায়ীরা দখল করে আছেন। গত সোমবার (২১শে সেপ্টেম্বর) ইউএনও’র কাছে এই অভিযোগ দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, কানাইঘাট পৌরসভার ১ নম্বর ও ২ নম্বর ওয়ার্ডের সর্বসাধারণ এই রাস্তা ব্যবহার করে নৌকাযোগে পারাপার হন। প্রতিদিন এ রাস্তা ব্যবহার করে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার হাজার হাজার ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকরা চলাচল করে থাকেন। তাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। তাছাড়া এখানে শত বৎসরের পুরাতন বাসস্টেশন এখন সিএনজি স্টেশন। উপজেলার সাতঁবাক, ভবানীগঞ্জ, লোভামুখ বাজারে যানবাহন চলাচল করে। যাত্রীদের বসা বা বিশ্রামের জন্য তৈরি হলেও বর্তমানে প্রভাবশালীদের দখলে খেয়াঘাটের যাত্রী ছাউনি।

লিখিত অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, বর্তমানে খেয়াঘাটের রাস্তাসহ যাত্রী ছাউনি দখল করে সেখানে পাথর মজুদ করে রেখেছেন পাথর ব্যবসায়ীরা। একমাত্র চলাচলের রাস্তা হওয়ায় গ্রামের সর্বসাধারণ খেয়াঘাট হয়ে নৌকাযোগে নদী পাড়ি দিয়ে আসতে হয় কানাইঘাট বাজারে। জরুরী প্রয়োজনে তাদের কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসন, থানা, ভূমি অফিসহ বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া আসা করতে হয়। রাস্তার সিঁড়ির পাশে দীর্ঘদিন যাবত একটি যাত্রী ছাউনি ছিল। এখানে ঝড় বৃষ্টির সময় পথযাত্রীরা আশ্রয় নিতেন। বর্তমানে স্থানীয় কয়েকজন পাথর ব্যবসায়ী মিলে ছাউনির একাংশ ভেঙ্গে যাত্রী যাওয়ার রাস্তা দখল করে পাথরের ব্যবসা করে আসছেন। ফলে ধীরে ধীরে যে যার মত করে জায়গা দখল করে আছেন এবং জায়গার উপর পাথর মজুদ করে রেখেছেন। কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসন পূর্বে অভিযান করলেও এখন কোনো কার্যকরী কোন উদ্যোগ না থাকায় আবারও শতবর্ষের যাত্রী ছাউনি ভেঙ্গে রাস্তাসহ জায়গা পাথর ব্যবসায়ীদের দখলে চলে গেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close