ছাত্রীকে ধর্ষণ, চেয়ারম্যানের ভাতিজার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে মেধাবী স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চাঞ্চল্যকর ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে ধর্ষণকারী নাঈম হাসানকে (২৮) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

ঘটনার আট বছর পর বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ শাহীন উদ্দীন এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে অপহরণ ও নারী ও শিশু নির্যাতন উভয় অভিযোগে পৃথকভাবে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ আসামিকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার দুই লাখ টাকা আদায় করে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর পরিবারকে দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সাজাপ্রাপ্ত নাঈম জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছে। নাঈম হাসান আড়াইহাজার উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের উজান গোবিন্দী গ্রামে আব্দুর রউফ মিয়ার ছেলে ও ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লাক মিয়ার ভাতিজা।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর রকিবউদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বরাত দিয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী কাজী আব্দুস সেলিম ও অ্যাডভোকেট মাসুদ রানা জানান, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা-২০১০-এ নারায়ণগঞ্জ জেলায় পঞ্চম স্থান অর্জনকারী ও ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পায় ওই শিক্ষার্থী। ২০১২ সালের ৭ এপ্রিল সে উজান গোবিন্দী বিনাইরচর উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে রাস্তা থেকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে ধর্ষক নাঈম হাসান।

অপহরণের পর রূপগঞ্জের পারাগাঁও এলাকায় নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এরপর ওই ছাত্রীকে অজ্ঞান অবস্থায় তাদের বাড়ির সামনের রাস্তায় ফেলে যায়। পরিবারের সদস্যরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নারী নির্যাতন প্রতিরোধ সেলে রেখে চিকিৎসা দেন।

এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অপহরণসহ নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে আড়াইহাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বাদী জানান, ধর্ষণকারী ও তার পরিবার স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনার পর গত আট বছর তাকে এবং তার পরিবারের সদস্যদের নানারকম হয়রানি সহ্য করতে হয়েছে। তিনি আদালতের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close