ব্রিটিশ রানিকে আর রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে মানবে না বার্বাডোজ

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ ও ক্যারিবীয় অঞ্চলের দেশ বারবাডোজ ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে রাষ্ট্রীয় প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে রাজতন্ত্রের ঘেরাটোপ থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। মঙ্গলবার সংসদ অধিবেশনে ক্যারিবিয়ান দ্বীপ রাষ্ট্রটির প্রধানমন্ত্রী মিয়া মোটলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ‘আগামী বছরের নভেম্বরে দেশের ৫৫ তম স্বাধীনতার বর্ষপূর্তির মধ্যেই রাজতন্ত্র থেকে বেরিয়ে এসে দেশ প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে পথ চলা শুরু করবে।’

বার্বাডোজের প্রধানমন্ত্রীর এমন ঘোষণা নিয়ে অবশ্য ব্রিটিশ রাজ পরিবার কিংবা ব্রিটিশ সরকারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি। তবে বার্বাডোজই যে ব্রিটিশ উপনিবেশ হিসেবে রাজতন্ত্র থেকে বেরিয়ে প্রজাতন্ত্রের পথে হাঁটছে তা নয়। স্বাধীনতার চার বছরেরও কম সময়ের মধ্যে ১৯৭০ সালে গায়ানা এবং ১৯৭৬ ও ১৯৭৮ সালে ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো ও ডোমিনিকা প্রজাতন্ত্রও একই পথ অনুসরণ করেছিল।

সংসদ অধিবেশনের শুরুতে লিখিত ভাষণে বার্বাডোজের প্রধানমন্ত্রী মিয়া মোটলে লিখিত ভাষণে বলেছেন, ‘বার্বাডোজের সাধারণ মানুষ স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে একজন বার্বাডিয়ানকেই রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে দেখতে চান। উপনিবেশের অতীত এখন পুরোপুরি পিছনে ফেলে আসার সময় এসেছে।’

১৯৬৬ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশিকতার বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে এসে স্বাধীনতা লাভের সময় দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী এরল ব্যারোরের একটি মন্তব্যও এদিন উদ্ধৃত করেছেন বার্বাডোজের প্রধানমন্ত্রী। স্বাধীনতা লাভের আনন্দে যখন মশগুল দেশবাসী তখন বার্বাডোজের প্রথম প্রধানমন্ত্রী সতর্কতা করে বলেছিলেন, ‘উপনিবেশিক বৃত্তের মধ্যে দেশকে ঘুরপাক খাওয়া উচিত হবে না।’

২২ বছর আগে ১৯৯৮ সালে সাংবিধানিক রিভিউ কমিশন রাজতন্ত্রের পরিবর্তে দেশকে প্রজাতান্ত্রিক দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সুপারিশও করেছিল।

সূত্র : আল জাজিরা।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close