যুক্তরাজ্যের হুয়াওয়ে বাতিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

ব্রিটিশ সরকার দেশটির ভবিষ্যাতের ৫জি নেটওয়ার্ক থেকে চীনা কম্পানি হুয়াওয়ের যন্ত্রাংশ নিষিদ্ধের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে স্বাগত জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। গত ১৪ জুলাই ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের (এনএসসি) এক মিটিংয়ে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন হুয়াওয়ের ফাইভ-জি যন্ত্রাংশ নিষিদ্ধের প্রস্তাবনায় সাক্ষর করেন।

যুক্তরাজ্যের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, লন্ডন বিশ্বের উচ্চ প্রবৃদ্ধির শহরগুলোর একটি। সেখানে হুয়াওয়ের মতো ‘অবিশ্বস্ত’ ফাইভ-জি যন্ত্রাংশ ব্যবহার নিষিদ্ধ করে তাদের জাতীয় সুরক্ষার পক্ষে দাঁড়িয়েছেন। যুক্তরাজ্য হুয়াওয়ের উচ্চ-ঝুঁকি অনুধাবন করতে পেরেছে।

এক বিবৃতিতে পম্পেও বলেছেন, ভারতে জিওর মতো ক্লিন ক্যারিয়ার এবং অন্যরাও তাদের নেটওয়ার্কগুলোতে চীনা কম্পানির সরঞ্জাম ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। তিনি আরো বলেন, ৫ জি সরঞ্জাম এবং সফটওয়্যার জাতীয় সুরক্ষা, অর্থনৈতিক সুরক্ষা, গোপনীয়তা, বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পত্তি বা মানবাধিকারকে হুমকির সম্মুখীন করবে না এটা সব দেশের নিশ্চিত হওয়া দরকার।

পম্পেও বলেন, ‘আমরা যুক্তরাজ্যের ভবিষ্যাতের ৫ জি নেটওয়ার্ক থেকে হুয়াওয়েকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই এবং বিদ্যমান নেটওয়ার্কগুলো থেকে অবিশ্বস্ত হুয়াওয়ের সরঞ্জাম অপসারণের যে পরিকল্পনা করেছে তাকে সাধুবাদ জানাই। অবিশ্বস্ত এবং উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ সরঞ্জাম ব্যবহার নিষিদ্ধ করে যুক্তরাজ্য তাদের জাতীয় সুরক্ষার পক্ষে দাঁড়িয়েছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আমাদের ব্রিটিশ বন্ধুদের সাথে একটি সুরক্ষিত এবং প্রাণবন্ত ৫ জি নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার বিষয়ে কাজ চালিয়ে যাব, যা ট্রান্স-আটল্যান্টিক সুরক্ষা এবং সমৃদ্ধির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’ 

সুরক্ষিত ৫ জি-র পক্ষে সবাই ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, পোল্যান্ড, রোমানিয়া এবং সুইডেনের মতো গণতন্ত্রিক দেশগুলোতে ভবিষ্যতের ৫ জি নেটওয়ার্ক থেকে হুয়াওয়েকে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে।

ভারতের জিও, অস্ট্রেলিয়ার টেলস্ট্র্রা, দক্ষিণ কোরিয়ায় এসকে এবং কেটি, জাপানের এনটিটি এবং অন্যরা তাদের নেটওয়ার্কগুলোতে হুয়াওয়ের সরঞ্জাম ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে।

আগামী ৩১ ডিসেম্বরের পর যুক্তরাজ্যের কোনো মোবাইল অপারেটর চীনা কম্পানিটির কাছ থেকে ফাইভ-জি যন্ত্রাংশ কিনতে পারবে না। এরইমধ্যে হুয়াওয়ের যেসব সরঞ্জাম ব্যবহার করা হচ্ছে সেগুলো সরিয়ে নেয়ার জন্য ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানগুলো সময় পাবে ২০২৭ সাল পর্যন্ত। এর মধ্যেই হুয়াওয়ের সব সরঞ্জাম বাদ দেবে তারা।

সূত্র :— হিন্দুস্তান টাইমস।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close