‘করোনা’: তথ্য গোপন করেছে ইরান, মৃত্যু সরকারি হিসাবের ৩ গুণ!

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

ইরানে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা দেশটির সরকার যা দাবি করেছে, তার চেয়ে প্রায় তিন গুণ বেশি বলে বিবিসির পার্সিয়ান সার্ভিসের এক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে।

সরকারি হিসাবে ইরানে ২০ জুলাই পর্যন্ত কভিড-১৯-এর উপসর্গ নিয়ে প্রায় ৪২ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অথচ দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন বলছে, মৃতের সংখ্যা ১৪ হাজার ৪০৫ জন।

আক্রান্তের সংখ্যায়ও রয়েছে গরমিল। যতসংখ্যক মানুষ সংক্রমিত হয়েছে বলে জানা গেছে, সেটা সরকারি পরিসংখ্যানের প্রায় দ্বিগুণ। সরকারি পরিসংখ্যান বলছে, মোট সংক্রমিত হয়েছে দুই লাখ ৭৮ হাজার ৮২৭ জন। কিন্তু গোপনীয় রেকর্ডে এই সংখ্যা আসলে চার লাখ ৫১ হাজার ২৪ জন।

চীনের বাইরে যে দেশগুলোয় করোনাভাইরাস ব্যাপক ক্ষতি করেছে, তার মধ্যে ইরান অন্যতম। সাম্প্রতিক সপ্তাহে, দেশটিতে দ্বিতীয় দফায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় ঊর্ধ্বগতি দেখা দেয়।

বিবিসির কাছে আসা মেডিক্যাল রেকর্ড এবং তালিকা অনুযায়ী, কভিড -১৯-এ ইরানে প্রথম মৃত্যু হয়েছিল ২২ জানুয়ারি। যেটা কিনা দেশটিতে করোনাভাইরাসের প্রথম অফিশিয়াল কেস প্রতিবেদন আকারে প্রকাশ হওয়ার প্রায় এক মাস আগের ঘটনা।

ইরানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর থেকে অনেক পর্যবেক্ষক সরকারি পরিসংখ্যান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন। জাতীয় এবং আঞ্চলিক পর্যায় থেকে আসা তথ্যের মধ্যে অসামঞ্জস্য দেখা গিয়েছিল। এ বিষয়ে স্থানীয় কয়েকজন কর্তৃপক্ষ মুখ খুললেও পরিসংখ্যানবিদরা বিকল্প অনুমান দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।

বেশির ভাগ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য পরীক্ষা কম হওয়ার কারণে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা শুরুতে কম দেখা গিয়েছিল।

তবে বিবিসির তদন্তে জানা গেছে যে ইরানের কর্তৃপক্ষ সব আক্রান্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড থাকা সত্ত্বেও দৈনিক প্রকাশিত সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কম দেখিয়েছে, যা এটাই ইঙ্গিত করে যে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গোয়েন্দা সংস্থার চাপে ছিল।

সূত্র : বিবিসি বাংলা।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close