কানাইঘাটে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি,লুন্ঠিত মালামালসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার

কানাইঘাট প্রতিনিধি::

সিলেটের কানাইঘাটে এক প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনায় তিন ডাকাতকে গ্রেপ্তার ও ডাকাতি হওয়া মালামাল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, গত ১লা আগস্ট রাত ৩টার দিকে উপজেলার রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের পারকুল গ্রামে সৌদি প্রবাসী লুৎফুর রহমানের পাকা ভবনের বারান্দার ছোট ফটকের তালা ভেঙে ৭/৮ জনের সশস্ত্র ডাকাতদল ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় ঘরে থাকা প্রবাসীর মা তাহেরা বেগমসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ঘুম থেকে জেগে উঠলে ডাকাতদলের কয়েকজন তাদের ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখায়। প্রবাসীর স্ত্রী শুকুরা বেগম চিৎকার করলে ডাকাতদের একজন তার মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে এবং প্রবাসীর স্ত্রী ও মেয়েদের চোখ-মুখ বেঁধে ফেলে। একপর্যায়ে ডাকাতরা প্রবাসীর ঘরে থাকা নগদ টাকা, ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ দামি মোবাইল সেট নিয়ে চলে যায়।

তাৎক্ষণিক ডাকাতির ঘটনার সংবাদ পেয়ে সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র নির্দেশনা মোতাবেক কানাইঘাট থানার পুলিশ একাধিক বিশেষ টিম গঠন করে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করে। থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম’র নেতৃত্বে ওসি (তদন্ত) আনোয়ার জাহিদ, এসআই সনজিত কুমার রায়, এসআই আবু কাউছার, এসআই স্বপন চন্দ্র সরকার, এএসআই মোজাম্মেল হকসহ পুলিশের একাধিক টিম আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডাকাতির ঘটনার ২৪ ঘন্টার মধ্যে জড়িতদের অবস্থান নির্ণয় করতে সক্ষম হয় এবং সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ডাকাতির ঘটনার মূল হোতা পারকুল গ্রামের তেরা মিয়ার পুত্র ডাকাত আলী আহমদকে (৩০) তার নিজ বসতঘর থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে অপর দুই ডাকাত একই গ্রামের মৃত শফিকুর রহমানের পুত্র আব্দুল লতিফ (৩৯) ও তালবাড়ি লক্ষীপুর পূর্ব গ্রামের মৃত মনির উদ্দিনের পুত্র আব্দুর রহমান ওরফে রহমানকে (২৭) গ্রেপ্তার এবং তাদের কাছ থেকে লুন্ঠিত ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৩টি মোবাইল সেট ও নগদ ২ হাজার টাকা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

ডাকাতির ঘটনার পর পর প্রবাসী লুৎফুর রহমানের মা তাহেরা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ৬/৭ জন ডাকাতের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তা মামলা হিসেবে গৃহিত হয়। উক্ত মামলায় গ্রেপ্তার ৩ ডাকাতকে আসামি দেখিয়ে গত রোববার সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close