দক্ষিণ সুরমায় নিজাম উদ্দিন হত্যা মামলায় গ্রেফতার স্ত্রী গেনী বেগম এর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান

বামী ও দুই সন্তান নিয়ে সুখেই সংসার করছি লেন স্ত্রী গেনী বেগম (৩৫)। তাহাদের বিবাহের বয়স প্রায় ১৮ বছর। নিজ বাড়ী মোগলাবাজার থানাধীণ দাউদপুর হলেও স্বামী-সন্তান নিয়ে থাকতেন দক্ষিণ সুরমা থানাধীন মোমিনখলাস্থ আব্দুল গফ্ফারের ভাড়া বাসায়। পারিবারিক কলহের জের ধরে ইং ২২/০৭/২০২০খ্রি: রাতে দুই সন্তান নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন গেনী বেগম। মাঝ রাতে স্বামী বাসায় ফিরলে শুরু হয় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ। একপর্যায়ে গেনী বেগম ঘরে থাকা ধারালো বটি দা দিয়ে স্বামীর ঘাড়ে আঘাত করেন। এরপর স্বামীর পুরুষাঙ্গ কর্তন করে মৃত্যু নিশ্চিত করত: স্বামীর মৃত দেহ কাঁথা দিয়ে ডেকে রেখেন। অতপর ঘুমন্ত ০২ সন্তান রাফি (১৫) ও রাহি (১০) দের নিয়ে দরজায় তালা দিয়ে ভোর বেলা বাবার বাড়ী ফেঞ্চুগঞ্জে চলে যায়। ভোরে শিশু সন্তানদের নিয়ে আগমন দেখে ভাইয়েরা জিজ্ঞাস করলে, তিনি তার স্বামীর সহিত সংঘটিত ঝগড়ার ঘটনা বলেন। গেনী বেগমের ভাই এনু মিয়া, ঝগড়ার বিষয়টি নিজাম আহমদ এর বড় ভাই আসলাম আহমদ কে জানায়। তার বোনের বাসায় যাওয়ার জন্য অনুরোধ করে। এই প্রেক্ষিতে নিজাম আহমদ এর ভাতিজা তুহিন আহমদ তার চাচা নিজাম আহমদ এর বাসায় এসে দরজা তালা বদ্ধ দেখে বাড়ীওয়ালা সহ আশপাশের লোকজনকে অবগত করেন। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। সকলের উপস্থিতিতে বাসার দরজা খুলে দেখা যায় নিজাম আহমদ মৃত, তার লাশ কাঁথা দিয়ে ঢাকা। শরীরের আঘাতের চিহ্ন এবং পুরুষাঙ্গ কর্তিত। তাৎক্ষনিক সংবাদ পেয়ে জনাব সোহেল রেজা-পিপিএম, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ), এসএমপি, সিলেট ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ আখতার হোসেনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের  জন্য নির্দেশবলী প্রদান করেন। পুলিশী ব্যবস্থা হিসেবে লাশের সুরতহাল করত: ময়না তদন্তের ব্যবস্থা করে লাশ আত্মীয় স্বজনের নিকট বুঝিয়ে দেওয়া হয়। আলামত জব্দ করা হয়। পলাতক গেনী বেগমকে গ্রেফতারে সাড়াশি অভিযান শুরু হয়। একপর্যায়ে মো: মোখলেছুর রহমান, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত), দক্ষিণ সুরমা থানা, এসএমপি, সিলেট ঘটনাকারী গেনী বেগমকে ফেঞ্চুগঞ্জ থানাধীন ঘিলাছড়া যুধিষ্টিপুর গ্রামের হাকালুকি হাওড়ের জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এই ঘটনায় নিজাম আহমদ এর ভাতিজা তুহিন আহমদ (২৫), পিতা-আসলাম আহমদ, সাং-দাউদপুর, থানা-মোগলাবাজার, জেলা-সিলেট এর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গ্রেফতারকৃত গেনী বেগম (৩৫),  এর বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানার মামলা নং-১৯, তারিখ-২৪/০৭/২০২০খ্রি:, রুজু হয়। ধৃত গেনী বেগমকে বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করা হলে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করে।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আখতার হোসেন, অফিসার ইনচার্জ, দক্ষিণ সুরমা থানা, এসএমপি, সিলেট।

— বিজ্ঞপ্তি ।।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close