কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশ কর্তৃক চিহ্নিত ছিনতাইকারী গ্রেফতার ও ধারালো চাকু উদ্ধার

নারী এসআই(নি:) সাবিকুন নাহার সরকারি ডিউটি শেষে জালালাবাদ থানার সামনে হইতে সিএনজি যোগে দক্ষিণ সুরমা থানার মহিলা ব্যারাকের উদ্দেশ্যে ১৫/০৭/২০২০ইং তারিখ রাত্র আনুমানিক ২২.০০ ঘটিকায় কোতোয়ালী মডেল থানাধীন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১নং গেইট এর সামনে রাস্তার উপর পৌছামাত্র নিম্নবর্ণিত ছিনতাইকারীগন সিএনজি’র গতিরোধ করত: ভয়ভীতি প্রদর্শন করত: ত্রাস ও আতংক সৃষ্টি করিয়া ভিকটিমের ভ্যানেটি ব্যাগ ও ব্যাগে রক্ষিত স্যামসং ডোজ মোবাইল সেট সহ নগদ ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা ছিনাইয়া নেওয়ার চেষ্টাকালে ভিকটিম ও সিএনজি চালক প্রতিবাদ করিলে ছিনতাইকারীগন ধারালো চাকু দ্বারা সিএনজি চালক জুয়েল আহমদ এর ডান পায়ের হাটুর উপরে আঘাত করিয়া গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যাওয়ার সময় উপস্থিত লোকজনের সহায়তায় টহলরত এসআই(নি:) আব্দুল্লাহ আল নোমান সঙ্গীয় ফোর্সসহ নিম্নবর্ণিত ১ ও ২নং আসামীদ্বয়কে আটক করিতে সক্ষম হন এবং তাহাদের সহযোগী এজাহারনামীয় অন্যান্য ছিনতাইকারীগন পালিয়ে যায়। আটককৃত ছিনতাইকারীদ্বয়ের হেফাজত হইতে ০২(দুই)টি ধারালো টিপ চাকু ও একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করেন। ঘটনার বিষয়ে নারী এসআই(নি:) সাবিকুন নাহার বাদী হইয়া থানায় এজাহার দায়ের করিলে কোতোয়ালী মডেল থানার মামলা নং-২১, তাং-১৬/০৭/২০২০খ্রিঃ, রুজু করা হয়। মামলা রুজু হওয়ার পর জনাব মোঃ আজবাহার আলী শেখ পিপিএম, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) এর সার্বিক দিকনির্দেশনায় কোতোয়ালি মডেল থানার একটি চৌকস দল ঘাসিটুলা ও নবাব রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া অদ্য ১৬/০৭/২০২০ইং তারিখ ভোর আনুমানিক ০৪.৩০ ঘটিকার সময় এজাহার নামীয় নিম্ন বর্ণিত ৩ ও ৪নং আসামীদ্বয়কে গ্রেফতার করেন।

ধৃত আসামীদের নাম ঠিকানা::—

১। আকিনুর ইসলাম আকিন (১৯) পিতা- মোঃ আফাজ্জল হোসেন, মাতা-আমেনা বেগম, গ্রাম-পাঠাবুকা, থানা- তাহিরপুর, জেলা- সুনামগঞ্জ বর্তমান: গ্রাম- ঘাসিটুলা (মোস্তাক মিয়ার কলোনী, মাদ্রাসা রোড), থানা- কোতোয়ালী, জেলা-সিলেট।
২। নাঈম আহমদ (১৯) পিতা- শামীম আহমদ, মাতা- লাভলী বেগত, স্থায়ী: গ্রাম- ভাটিপাড়া, থানা- দিরাই, জেলা- সুনামগঞ্জ বর্তমান: গ্রাম- ঘাসিটুলা (মোস্তাক মিয়ার কলোনী, মাদ্রাসা রোড), থানা- কোতোয়ালী, জেলা-সিলেট।
৩. রনি পাল (২১) পিতা-রনজিত পাল, মাতা- মুক্তা রানী পাল, স্থায়ী: গ্রাম- শত্রুমর্ধন পাগলা (পো: শান্তিগঞ্জ) উপজেলা/থানা- দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, সুনামগঞ্জ বর্তমান: গ্রাম-নবাব রোড, বাসা নং-২০৬ (আজাদ সেন্টারের পার্শ্বে) উপজেলা/থানা-সিলেট সদর (কোতোয়ালী), সিলেট, বাংলাদেশ।
৪. শফিকুল ইসলাম (২২) পিতা- মৃত মনফর আলী, মাতা- রেজবিয়া বেগম, স্থায়ী: গ্রাম- খয়ারপুর, উপজেলা/থানা- অষ্টগ্রাম, কিশোরগঞ্জ, বাংলাদেশ বর্তমান: গ্রাম- ঘাসিটুলা (মোস্তাক হাজীর কলোনী, মাদ্রাসা রোড), উপজেলা/থানা-সিলেট সদর (কোতোয়ালী), সিলেট, বাংলাদেশ।

— বিজ্ঞপ্তি ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close