সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোকা-কোলার বিজ্ঞাপন বন্ধ

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

বিশ্বজুড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আগামী ৩০ দিনের জন্য বিজ্ঞাপন বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে কোকা-কোলা। ঘৃণা ও বিদ্বেষমূলক বার্তা ঠেকানোর জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওপর যখন চাপ বাড়ছে, তখন কোকা-কোলা এই ঘোষণা দিল।

মার্কিন বহুজাতিক কোমল পানীয় প্রস্তুতকারক এই কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেমস কুইনসি বলেছেন, বিশ্বে বর্ণবাদের কোনও স্থান নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বর্ণবাদের স্থান নেই। তিনি সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলোর আরও বেশি জবাবদিহিতা এবং স্বচ্ছতা দাবি করেন।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সম্ভাব্য ক্ষতিকারক এবং বিভ্রান্তিকর পোস্টে লেবেল যুক্ত করে দেয়ার ঘোষণার পর কোকা-কোলা বিজ্ঞাপন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিল। এর আগে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ বলেন, নির্দিষ্ট জাতি বা গোষ্ঠী, ধর্ম-বর্ণ, যৌনতা, লিঙ্গ পরিচয় বা অভিবাসন প্রত্যাশীদের অন্যের জন্য হুমকি হিসেবে তুলে ধরে; এমন কনটেন্টের বিজ্ঞাপন ফেসবুক নিষিদ্ধ করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষ্ণাঙ্গ তরুণ জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড ঘিরে বিশ্বজুড়ে বর্ণবাদ, ঘৃণা ও বিদ্বেষের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলছে। বৈশ্বিক এই আন্দোলনের মুখে ইতোমধ্যে বেশ কিছু বহুজাতিক কোম্পানিকে তাদের বিজ্ঞাপন ফেসবুকে প্রচার বন্ধে আহ্বান জানিয়েছে ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর দি অ্যাডভান্সমেন্ট অফ দ্য কালারড পিপল (এনএএসিপি)।

কৃষ্ণাঙ্গ আন্দোলন থেকে গড়ে ওঠা এই জোট স্টপ হেইট ফর প্রফিট হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে সামাজিক যোগােযোগ মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু করেছে। তারা বলেছেন, ঘৃণা, বিদ্বেষমূলক বার্তা এবং ভুল তথ্য ছড়ানোর বিরুদ্ধে ফেসবুক যথেষ্ঠ ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

স্টপ হেইট ফর প্রফিট হ্যাশট্যাগ ক্যাম্পেইনের সমর্থনে ইতোমধ্যে ফেসবুকে ৯০টিরও বেশি কোম্পানি তাদের বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দিয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসিকে কোকা-কোলা বলেছে, বিজ্ঞাপন বন্ধের অর্থ এই নয় যে, তারা আফ্রো-আমেরিকানদের আন্দোলনে যোগ দিচ্ছেন।

কুইনসি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আমাদের বিজ্ঞাপন নীতিমালা পুনর্বিবেচনার দরকার আছে কিনা; বিজ্ঞাপন বন্ধের এই সময়ে তা যাচাই করে দেখা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close