১০ দিন পর হাসপাতাল জানাল,আপনাদের সন্তান মারা গেছে!

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

ভারতের আরজি কর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক শিশুর মৃত্যুর ১০ দিন পর পরিবারকে জানানো হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। এতো দিন পর সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুর মৃত্যুর খবর জানতে পেরে ক্ষুব্ধ বাবা-মা।

ভারতের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, গত ১২ জুন ভারতের হুগলির চন্দনগর নামক এলাকার বাসিন্দা বাবন এবং দেবযানী মণ্ডলের সন্তানের জন্ম হয়। তবে সদ্যোজাতর শ্বাসকষ্টের সমস্যা ছিল। তাই তাকে ভর্তি করা হয় আরজি কর হাসপাতালে। শিশুটির পরিবারের দাবি, প্রায় সারাক্ষণ হাসপাতাল চত্বরে তার অভিভাবকরা থাকতেন। চিকিৎসকের সঙ্গে কথাও বলতে যেতেন। তবে চিকিৎসক তাদের পাত্তা দিতেন না। পরিবর্তে অত্যন্ত খারাপ ব্যবহার করা হতো তাদের সঙ্গে। শুক্রবারই তারা জানতে পারেন গত ১৫ জুন তাদের সন্তান মারা গেছে। তবে তাদের হাতে দেওয়া হয়নি ডেথ সার্টিফিকেট। কেন প্রায় ১০ দিন পর সন্তানের মৃত্যুর খবর জানানো হলো না সেই প্রশ্ন তোলেন নিহতের বাবা-মা। 

তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি উল্টো। অধ্যক্ষের দাবি, বারবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শিশুর পরিবারের লোকেদের দেখা করার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। তবে কেউই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষর কাছ থেকে শিশুর স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর নিতে আসেনি। তাই বাধ্য হয়ে হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে জানানো হয়। পুলিশেরই ওই শিশুর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা ছিল।

তবে কেন পুলিশের পক্ষ থেকে ওই শিশুর পরিবারকে জানানো হলো না, তা খতিয়ে দেখা হবে বলেই আশ্বাস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। দেহ কোথায় রয়েছে, সে সম্পর্কে উপযুক্ত উত্তর দিতে পারবে পুলিশই। এই ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কিভাবে এমন কাণ্ড ঘটল, সে বিষয়ে তথ্য পাওয়া যাবে বলেই আশ্বাস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। 

এদিকে, এই ঘটনা নিয়ে তোলপাড় চলছে হুগলিতে। ঘটনার বিষয়ে জানতে আরজি কর হাসপাতালে যান বিজেপি নারী নেত্রী অগ্নিমিত্রা পল। হাসপাতালের সুপারের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। কেন শিশু মৃত্যুর খবর জানানো হল না পরিবারকে, সে প্রশ্নই করেন অগ্নিমিত্রা। তবে বিজেপি নেত্রীকেও একই কথা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সূত্র::— সংবাদপ্রতিদিন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close