নন-এমপিও শিক্ষকদের সাড়ে ৪৬ কোটি টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ৪৬ কোটি ৬৩ লাখ ৩০ হাজার টাকার বিশেষ অনুদান প্রদান করেছেন। এ বরাদ্দ ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষক ও ২৫ হাজার ৩৮ জন কর্মচারীর মধ্যে বিতরণ করা হবে।

বৃহস্পতিবার শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, এমপিওবিহীন শিক্ষকদের জন্য এই দুর্যোগের সময় যখন অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ, তখন ৪৬ কোটি ৬৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা আমাদের ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষক ও ২৫ হাজার ৩৮ কর্মচারীর মধ্যে বিতরণের জন্য জরুরি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ৬৪ জেলার ৮,৪৯২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) নন-এমপিও ৮০,৭৪৭ জন শিক্ষকের প্রত্যেককে ৫,০০০/= টাকা হারে এবং ২৫,০৩৮ জন ননএমপিও কর্মচারীর প্রত্যেককে ২,৫০০/= টাকা হারে মোট ১,০৫,৭৮৫ জন শিক্ষক-কর্মচারীর জন্য ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে শিক্ষা বান্ধব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার ‘বিশেষ অনুদান’ এর খাত হতে ৪৬,৬৩,৩০,০০০/= (ছেচল্লিশ কোটি তেষট্টি লক্ষ ত্রিশ হাজার) টাকা ৬৪ জন জেলা প্রশাসকের অনুকূলে বরাদ্দ প্রদান করেছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের তালিকাভুক্ত EIIN ধারী নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিশাল সংখ্যক শিক্ষক-কর্মচারীদের হালনাগাদ তথ্যাদি ইতোপূর্বে সংগ্রহ করে ডাটাবেজ তৈরি করা হয় এবং স্থানীয় প্রাশাসনের মাধ্যমে নামের তালিকা যাচাই-বাছাই করা হয়। সেই তালিকার ভিত্তিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ‘বিশেষ অনুদান’ খাত হতে প্রাপ্ত অর্থ জেলা প্রশাসকগণ সংশ্লিষ্ট নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের অনুকূলে চেক/ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে চলতি মাসের মধ্যে বিতরণ করবেন।

এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মমিনুর রশিদ আমিন বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবের ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের জন্য প্রণোদনা অর্থ অনুমোদন করেছেন। আমাদের কাছে এ অর্থ এখনও পৌঁছেনি।

তিনি বলেন, শিক্ষক-কর্মচারীদের তালিকা আমাদের কাছে রয়েছে। প্রণোদনার অর্থ এলে তা তাদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট নম্বরে পাঠিয়ে দেয়া হবে। এ অর্থ পেলে করোনা পরিস্থিতিতে কিছুটা হলেও তারা স্বস্তি পাবেন।

জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে ব্যানবেইসের তালিকায় থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর ননএমপিও শিক্ষকের তথ্য যাচাই করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে ননএমপিও শিক্ষকদের আর্থিক সহায়তা দিতে ইতোমধ্যেই তাদের বিকাশ, নগদ, রকেট ও মোবাইল ফোন নাম্বার সংগ্রহ করা হয়েছে।

করোনা মহামারীর চলমান দুর্যোকালীন এই সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিশাল সংখ্যক ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের অনুকূলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হতে প্রাপ্ত বিশেষ অনুদান এবং ইতোপূর্বে চলতি অর্থ বছরে নতুন ২৭৩০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তিসহ উক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রায় ৩০,০০০ শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তির আওতায় এনে তাদের বেতন-ভাতাসহ চাকুরি সুনিশ্চিত করা বর্তমান সরকার তথা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মচারী এবং সর্বসাধারণের স্বাস্থ্য ঝুঁকি ও সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সাথে সাথে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক গত ১৬ মার্চ ২০২০ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও ‘শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ শ্লোগানকে ধারণ করে এই দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক ‘সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন’ এর মাধ্যমে ‘আমার ঘরে, আমার স্কুল’ প্রোগ্রাম চালু করে পাঠদান অব্যাহত রাখা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগণ ডিজিটাল তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে নিজ নিজ এলাকায় শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। করোনা মহামারীর এই দুর্যোগকালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় আর্থিক সংকটে থাকা নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ‘বিশেষ অনুদান’ এর খাত হতে আর্থিক সহায়তা প্রদান করায় শিক্ষা বান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি সমগ্র শিক্ষা পরিবার অত্যন্ত কৃতজ্ঞ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close