সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রফিক বিভাগের পক্ষ থেকে গণপরিবহন চলাচলে তদারকি প্রসঙ্গে

অদ্য- ০১/০৬/২০২০ খ্রিঃ, সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮ এর ৩৪ ধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কোভিড-১৯) এর বিস্তার প্রতিরোধকল্পে শর্ত সাপেক্ষে সীমিত পরিসরে নিদিষ্ট সংখ্যক যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে আন্তঃ জেলা ও দূরপাল্লায় চলাচলকারী বাস ও মিনিবাস চলাচলের জন্য সরকারী নির্দেশনা প্রদান করা হয়। উক্ত নির্দেশনার আলোকে সিলেট মহানগর এলাকার বিভিন্ন বাস স্টপ হতে যে সমস্থ গণপরিবহণ আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লায় চলাচল করছে সে সকল যানবাহনসমূহ নিম্নোক্ত সরকারী নির্দেশনাসমূহ যথাযথভাবে পালন করছেন কিনা সে বিষয়ে সিলেট মহানগর ট্রাফিক বিভাগ কর্তৃক তদারকি কার্যক্রম চলমান রয়েছে।


১। বাস/মিনিবাসের পাশাপাশি দুইটি আসনের একটি আসনে একজন যাত্রিকে বসিয়ে অপর আসনটি ফাঁকা রাখা, স্বাস্থবিধি মোতাবেক শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, সংশ্লিষ্ট মোটরযানের রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেটে উল্লেখিত আসন সংখ্যার অর্ধেকের বেশী যাত্রি বহন না করা এবং দাঁড়িয়ে কোন যাত্রি বহন না করার বিষয়ে মহানগর এলাকার নির্ধারিত স্টেশন হতে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া যানবাহানসমূহ ট্রাফিক পুলিশের মাধ্যমে পর্যবেক্ষন করা হচ্ছে।


২। স্বাস্থ সেবা বিভাগ এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণ পূর্বক বাস/মিনিবাসসমূহ সিলেট মহানগর এলাকার নির্দিষ্ট বাস ষ্ট্যান্ড হতে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হচ্ছে কিনা এ বিষয়ে তদারকি করা হচ্ছে।


৩। সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার গণপরিবহনসমূহ একইভাবে নিয়ম মেনে সিলেট মহানগর এলাকায় প্রবেশ করছে কিনা এ বিষয়ে নজরদারী করা হচ্ছে।
জনাব জ্যোতির্ময় সরকার, পিপিএম অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) ও জনাব আবুল খয়ের, সহকারি পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) এর নেতৃত্বে নগরীর কুমাড়গাঁও বাসস্টেন্ড, তেমুখি ও মজুমদারী এলাকায় এবং জনাব নিকুলিন চাকমা(পুলিশ সুপার), অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-দক্ষিণ) ও জনাব মোঃ আশিদুর রহমান, সহকারি পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-দক্ষিণ) এর নেতৃত্বে (হুমায়ুন রশিদ চত্ত্বর, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের লালাবাজার ও টিলাগড় এলাকায় তদারকি কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

— প্রেস বিজ্ঞপ্তি ।।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close