করোনাকে স্ত্রীর সঙ্গে তুলনা করে বিপাকে মন্ত্রী

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের প্রচেষ্টাকে স্ত্রীর ওপর স্বামীর নিয়ন্ত্রণের সঙ্গে তুলনা করেছেন ইন্দোনেশিয়ার আইন, রাজনীতি ও নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী মাহফুদ এমডি। মঙ্গলবার এক অনলাইন অনুষ্ঠানে করা তার ওই মন্তব্যের জন্য তোপের মুখে পড়েছেন তিনি।

জাকার্তা পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মাহফুদ এমডি ওই অনুষ্ঠানে বলেন, ”সমুদ্র ও বিনিয়োগ বিষয়ক মন্ত্রী পাক লুহুত আমাকে একটি মেমে পাঠিয়েছেন, যাতে বলা হয়েছে, ‘করোনা আপনার স্ত্রীর মতো। আপনি একে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করবেন, অবশেষে বুঝতে পারবেন যে তা সম্ভব না। তারপর এটাকে মানিয়ে নিয়েই জীবনযাপন করতে শিখবেন।”

এ মন্তব্যকে ‘লিঙ্গ বৈষম্যমূলক ও বিদ্বেষপূর্ণ’ বলে আখ্যায়িত করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নারী অধিকারকর্মীসহ অনেকেই। ইন্দোনেশিয়ার নারী অধিকার সংগঠন সলিডারিটাস পেরেমপুয়ানের প্রধান নির্বাহী দিনদা নিছা ইউরা তার এ মন্তব্যের সমালোচনা করে বলেন, ‘মাহফুদের ওই মন্তব্যের মধ্য দিয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের মনের গতানুগতিক লিঙ্গবৈষম্য ও নারী বিদ্বেষ ফুটে উঠেছে।’

দিনদা নিছা ইউরা এক বিবৃতিতে বলেন, ‘একজন মন্ত্রীর এমন মন্তব্যে করোনাভাইরাস মোকাবিলার প্রক্রিয়ায় সরকারের অগভীর চিন্তার প্রকাশ ঘটেছে। করোনার সঙ্গে তুলনার মধ্য দিয়ে নারীকে তিনি বস্তু হিসেবে উপস্থাপনের চেষ্টা করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘মন্ত্রীর বক্তব্যে নারীকে পুরুষের অধস্তন হিসেবে তুলে ধরে হেয় করা হয়েছে। সরকারের কর্মকর্তারা যখন নারীদের হেয় করে কথা বলেন, তখন নারী অধিকার নিয়ে সরকারের ওপর চাপপ্রয়োগ অব্যাহত রাখার কাজ চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে। মন্ত্রীর এমন রসিকতা নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতাকে স্বাভাবিক ঘটনায় পরিণত করবে।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশটির বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার অনেক মানুষ মাহফুদের মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেছে বলে জাকার্তা পোস্টের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

মনাশ ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক আরিয়েল হেরায়ান্তো টুইটারে এর নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘বিরক্তিকর। আশা করি এর একটা ব্যাখ্যা আমি পাব।’

এদিকে সাংবাদিক ফাব্রিয়ানা ফিরদাউস এক টুইটে ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘স্ত্রীদের যদি তাদের আর পছন্দ না হয়, তাহলে তারা দুজনে (মাহফুদ এমডি ও পাক লুহুত) বিয়ে করে ফেলছেন না কেন?’

যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, ইন্দোনেশিয়ায় এখন পর্যন্ত ২৪ হাজার ৫৩৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, যাদের মধ্যে মারা গেছেন এক হাজার ৪৯৬ জন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close