রণক্ষেত্র শহরতলীর টুকেরবাজার মাছের আড়ৎ,পুলিশসহ আহত ১২

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

সিলেট শহরতলীর টুকেরবাজার তেমুখি মৎস আড়তে রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৪ পুলিশ সদস্যসহ আহত হয়েছেন অন্তত ১২ জন।

বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে বাজার সংলগ্ন এলাকায় টুকেরবাজার মৎস আড়তের ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের সাথে স্থানীয় সাহেবের গাওর সিরাজুল হক ও আকমল হোসেনের লোকজনদের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, রাস্তা নিয়ে ব্যবসায়ীদের সাথে স্থানীয়দের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। থানা পুলিশসহ এলাকার মুরব্বিরা একাধিকবার এই বিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। গত রমজান মাসে স্থানীয় লোকজন রাস্তার মধ্যখানে বাঁশ দিয়ে মাছের আড়তে ট্রাক প্রবেশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। গতকাল বুধবার রাতে রাস্তার উপর পাঁকা পিলার দিয়ে তারা রাস্তা বন্ধ করে দেয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে বাজারে মাছ নিয়ে দুটি ট্রাক এলে ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা পিলার তুলে খুলে দিয়ে ট্রাক ঢুকাতে চান। তখন তাদের উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করে। এসময় ৪ পুলিশ সদস্যসহ ১২ জন আহত হন।

টুকেরবাজার মৎস আড়তের সাধারণ সম্পদক মুহিবুর রহমান বলেন, সরকারি রাস্তা দিয়ে মাছ বাজারের গাড়ি প্রবেশ করতে বেশকিছুদিন ধরে বাঁধা প্রদান করে আসছিলেন স্থানীয় সিরাজুল হক ও আকমল হোসেন গংরা। এ বাঁধা তুলে নিতে তারা আমাদের কাছে ৩০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। কিন্তু, আমরা চাঁদা না দিয়ে থানায় অভিযোগ করি। এতে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। বৃহস্পতিবার সকালে প্রায় ১২ লাখ টাকার মাছ নিয়ে দুটি ট্রাক টুকের বাজার মৎস আড়তে আসে। কিন্তু রাস্তায় পাঁকা পিলার থাকায় ট্রাক আড়তে প্রবেশ করতে পারেনি। তখন সিরাজুল হক ও আকমল হোসেন গংরা ট্রাক থেকে মাছ লুট করে। এসময় বাজারের ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা আটকাতে গেলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

মুহিবুর রহমান আরো বলেন, সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বাঁধা প্রদানকারীরা মৎস আড়তের ইজারাদার ও ব্যবসায়ি সভাপতি হেলাল উদ্দিনের মালিকানাধিন বাজার সংলগ্ন হাজী সফাত উল্লাহ ফিলিং স্টেশনে হামলা ও ভাংচুর চালায়। সেখানে থাকা সভাপতির একটি প্রাইভেট কার ভাংচুর করে তারা এবং প্রায় দুই লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় সংঘর্ষে জড়িত পক্ষ সিরাজুল হক ও আকমল হোসেন দু’পক্ষের ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সিরাজুল হক ও আকমল হোসেন দুজনই পুলিশ হেফাজতে থাকায় তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ ব্যপারে জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওকিল উদ্দিন আহমদ বলেন, রাস্তা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে টুকেরবাজার মৎস আড়তের ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের সাথে স্থানীয়দের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এ ঘটনায় সংঘর্ষে জড়িত দু’পক্ষের ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পূর্বে ব্যবসায়ীদের দেয়া অভিযোগ সম্পর্কে তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের অভিযোগ পেয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close