গোলাপগঞ্জে আবারও মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি::

গোলাপগঞ্জে আবারও মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক পড়েছে। প্রতিদিন কোনো না কোনো স্থান থেকে মোটর সাইকেল চুরি হচ্ছে। গত কয়েক বছরে এখানে বেড়েছে মোটরসাইকেল চোরদের উৎপাত। সম্প্রতি এ উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন ব্যবসায়ী, সাধারণ মানুষ। মোটরসাইকেল রেখে দোকানে, কাজে বা নামাজে গেলে ফিরে এসে তা আর পাওয়া যায় না। মূহুর্তের মধ্যে উধাও হয়ে যায় বাইক।

তবে চুরি ঠেকাতে থানা পুলিশ সক্রিয় থাকলেও এক্ষেত্রে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে চোরচক্র। বিভিন্ন পদ্ধতিতে তারা বিভিন্ন স্থান হতে মোটরসাইকেল নিয়ে উধাও হচ্ছে।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ জানিয়েছে, চুরি হয়ে যাওয়া গাড়ি ও চোরদের ধরতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। পুলিশ সক্রিয় থাকার পরও থেমে নেই চোর চক্র। সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের ধারণা এই চোরদের পিছনে শক্তিশালী চক্র কাজ করছে।

গত ২০ মে বুধবার রাত ৯ টায় গোলাপগঞ্জের আমুড়া ইউনিয়নের শীলঘাট গ্রামের জিয়াউরা থেকে ফ্যাশন প্রো সিলেট-হ-১৪-১৪৪৮ আরো একটি মোটরসাইকেল চুরি হয়ে গেছে। চুরি হওয়া মোটরসাইকেল মালিক ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের রায়গড় লিচু বাগানের সাজনু মিয়া গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি অভিযোগ (জিডি-৭৬৯) দায়ের করেছেন।

জানাযায়, সাজনু মিয়ার ছোট ছেলে নাইম আহমদ তার বন্ধু শীলঘাট জিয়াউরা গ্রামের সালমান আহমদ বাড়ির সংলগ্ন রাস্তার পাশে মোটরসাইকেলটি রেখে তার বাড়িতে যায়। পরে সালমানের ঘর থেকে বাহির হয়ে যথাস্থানে মোটরসাইকেলটি থোঁজে পায়নি।

এর আগে গত (২৬ জানুয়ারী) উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ জামে মসজিদের সামনে থেকে ভাদেশ^র মহিলা কলেজের প্রফেসার শরীফ উদ্দিনের ১টি পালসার মোটরসাইকেল চুরি হলে তা এখন পর্যন্ত কোন হদিস পাওয়া যায়নি। সেই চুরির রেশ না কাটতেই ঢাকাদক্ষিণ বাজারের এক ব্যবসায়ীর মোটরসাইকেল চৃরি হয় । পরে অবশ্য গোলাপগঞ্জ মডেল থানার সাহায্যে উদ্বার করা হয়। এর আগে ভাদেশ^র মাইজভাগ থেকে ভাদেশ্বর নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী শিক্ষক নজরুল ইসলাম সরকার,  একই প্রতিষ্ঠানের সিনিয়র শিক্ষক তারেক জলিলের টিভিএস ১০০ মোটর সাইকেল  হওয়ায়  সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশ এ পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close