কোম্পানীগঞ্জে ত্রাণ ও ঈদ সামগ্রী বিতরণকালে হামলা

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের পাড়ুয়া বাজারে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ কালে হামলা ও ত্রাণ লুটের ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার (১২ মে) বিকেল সাড়ে ৪ টায় সিলেট জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে শতাধিক দুঃস্থ পরিবারের মাঝে শাড়ী, লুঙ্গী ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শামীম আহমদের নেতৃত্বে তার লোকজন অতিথিদের উপর অতর্কিতভাবে হামলা এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। একই সাথে শামিমের লোকজন বিতরণকৃত শাড়ি লুঙ্গি ও ত্রাণ লুটে নেয়। এছাড়া অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে অতিথি হিসেবে উপস্থিত কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল হোসেনের দিকে মারতে তেড়ে আসে। এসময় দুপক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতি এবং বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে।

পরে উপস্থিত স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের হস্তক্ষেপে সাময়িক উত্তেজনা প্রশমিত হলেও কিছুক্ষণ পরেই আবার সংঘটিত হয়ে দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। আবারও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের হস্তক্ষেপে দুপক্ষকে নিবৃত করতে সক্ষম হন। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

ত্রাণ বিতরণ কালে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল মতিন, এসআই তরিকুল ইসলাম, পারুয়ার বিশিষ্ট মুরব্বি মশ্রব আলী, আব্দুল জব্বার, শিক্ষানবিশ আইনজীবী আফতার মিয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ইকবাল হোসেন, যুবলীগ নেতা সুজন মাহমুদ, আনসার উদ্দিন জিলানী, সুজন মিয়া, শাহবুদ্দিন, সোহেল মাহমুদ, রোকসান, সালেহ আহমদ, আব্দুল কাদির, তাজ উদ্দিন, ইয়াহিয়া প্রমুখ।

কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল হুসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, যেহেতু পুলিশের উপস্থিতে ঘটনা ঘটেছে সেহেতু আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

আর সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close