ছাতকে তুচ্ছ ঘটনার জেরে হামলায় ৮ জন আহত

ছাতক প্রতিনিধি::

ছাতকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের একটি তুচ্ছ ষ্ট্যাটাস নিয়ে এক হামলার ঘটনায় ৮জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রোববার রাতে শহরের তাতিকোনা এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সোমবার তাতিকোনা এলাকার বাসিন্দা রবীন্দ্র দাসের পুত্র তাপস দাস বাদী হয়ে একই এলাকার সাহেদ আলী সরকারের পুত্র আরিফ আহমদকে প্রধান করে ২২ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তাতিকোনা এলাকার বাসিন্দা সমবয়সী আরিফ আহমদ ও তাপস দাসের মধ্যে দুজনের মধ্যে ভালো সম্পর্কের মধ্যে গত কয়েকদিন ধরে তাদের মধ্যে মনমালিন্যতা দেখা দেয়। এরই মধ্যে তাপস দাসের একটি ফেইসবুক ষ্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে কিছু যুবক দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা স্বরাজ দাস, শিক্ষক প্রনব দাস মিটু ও মোবাইল ম্যাকানিক পবলু দাসের বাড়িতে হামলা চালায় এবং ব্যাপক ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এই হামলায় তাপস দাস, পবলু দাস, পিলু দাস, রাতুল চৌধুরী, শিমুল দাস, শিপরু দাসসহ ৮ জন আহত হয়। আহতদের ছাতক উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবির, সুনামগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার, ছাতক সার্কেল বিল্লাল হোসেন, থানার ওসি মোস্তফা কামাল ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহিদ মজনু ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে হামলায় ক্ষতিগ্রস্থদের শান্তনা দেন। বিষয়টি আইনী ভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।
এদিকে, এ ঘটনার বিষয়ে আরিফ আহমদের ভাই শরীফ আলম জানান, একসঙ্গে চলাফেরা করা এলাকার বন্ধু মহলের মধ্যে ফেসবুক ষ্ট্যাটাস নিয়ে মারামারি হয়েছে। হিন্দুদের বাসাবাড়ি বা মন্দিরে হামলার কোন ঘটনা ঘটেনি। এটি কোন গোষ্ঠির বা স¤প্রদায়ের ঘটনা নয়।

থানার ওসি গোলাম মোস্তফা ঘটনার বিষয়ে বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা নেয়া হয়েছে। সুষ্ট তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যস্থা নেয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close