কোম্পানীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত বৃদ্ধার মৃত্যু

কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা::

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হাজেরা বিবি (৬০) নামের বৃদ্ধা মারা গেছেন। গত বৃহস্পতিবার (৩০শে এপ্রিল) ভোরে নিজ বাড়িতে তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত তিনি সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন ছিলেন। নিহত হাজেরা বিবি কোম্পানীগঞ্জের দক্ষিণ রাজনগর গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের স্ত্রী।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আপ্তাব মিয়া বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা (নং-১৭) দায়ের করেছেন। মামলায় একই গ্রামের মৃত মন্তাজ আলীর পুত্র আব্দুর রহিমকে প্রধান আসামী করা হয়েছে। এছাড়া ১৭ জনের নামোল্লেখসহ ১৫-১৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। মামলার বিবরণে

জানা যায়, গত ৩১শে মার্চ রাত ১০টার দিকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আসামী আব্দুর রহিম ও তার সহযোগীদের সাথে প্রতিবেশী আয়না মিয়ার লোকজনের বিরোধ বাধে। এর জের ধরে দুপক্ষের সংঘর্ষ হয়।সংঘর্ষে আয়না মিয়ার মা হাজেরা বিবি ও মামা ময়না মিয়া আহত হন। এছাড়া, গৃহবধূ মৌসুমীসহ চারজন গুরুতর আহত হন। একপর্যায়ে প্রতিবেশী লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে হাজেরা বিবি ও ময়না মিয়াকে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য হাজেরা বিবিকে কিছুদিন একটি প্রাইভেট মেডিক্যালে রাখা হয়। অবস্থার আরও অবনতি হলে সেখান থেকে পুনরায় ওসমানী মেডিক্যালে ভর্তি করা হয়। গত মঙ্গলবার (২৮শে এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টায় ওসমানী থেকে ছাড়পত্র পান হাজেরা। বাড়িতে নেয়ার পর বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) ভোর রাতে হাজেরা বিবি মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আপ্তাব মিয়া বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. রজিউল্লাহ খাঁন বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ময়নাতদন্ত শেষে হাজেরা বিবির মৃতদেহ পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। আসামীদের ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close