নবীগঞ্জে যুবলীগ নেতার গোডাউনে পৃথক অভিযান,টিসিবির পণ্য উদ্ধার, ০৫ জন আটক

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ::

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে যুবলীগ নেতা নোমান হোসেনের গোডাউন ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে অবৈধভাবে মজুত রাখা বিপুল পরিমাণ টিসিবি পণ্য উদ্ধার করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় নোমান হোসেনের ছোটভাইসহ পাঁচ জনকে আটক করা হয়।

নবীগঞ্জ ও জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসন গত বৃহস্পতিবার (১৬ই এপ্রিল)  সন্ধা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রায় ৫ ঘন্টা ব্যাপি যৌথ অভিযানে এসব পণ্য উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা হলো- নোমানের ছোট ভাই আমান হোসেন (৩০), কর্মচারী জগন্নাথপুর উপজেলার আলীপুর গ্রামের নিতেশ রায়ের ছেলে লিংকন রায় (৩০), নবীগঞ্জ উপজেলার তপথিবাগ গ্রামের ছমেদ মিয়ার ছেলে সিরাজ মিয়া (৪০), একই গ্রামের শফিক উদ্দিনের ছেলে আব্দুল কালাম ও বটপাড়া গ্রামের কুতুব উদ্দিনের ছেলে আবুল কালাম (৪২)।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, অভিযানকালে জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের আলীপুরবাজারের এক গুদাম থেকে টিসিবি ৭৩ বস্তা চিনি, ১৯৬ পিস সয়াবিন তেল, চিনি পরিবর্তন করা ৬ বস্তা ও চিনির ৯টি খালি বস্তা এবং ইনাতগঞ্জ ব্যবসা প্রতিষ্টান ও গুদাম থেকে টিসিবি’র পুষ্টি ব্রান্ডের ৫ লিটারের ৪৯ কার্টুন সোয়াবিন তেল, লেভেল ছাড়া ৫ লিটারে সোয়াবিন তেল ও বিপুল পরিমান ভারতীয় সিগারেট উদ্বার করা হয়। 

অভিযানের খবর পেয়ে যুবলীগ নেতা নোমান হোসেন পালিয়ে গেলেও তার ভাইসহ পাঁচ জনকে আটক করা হয়।

অভিযানের খবর পেয়ে শত শত ভুক্তভোগী মানুষ জড়ো হয়  ইনাতগঞ্জ বাজারে। এসময় তারা নোমান হোসেনকে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি ইনাতগঞ্জ পূর্ববাজার থেকে শুরু করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। 

অভিযানে অংশ নেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল, নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান, জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়াসির আরাফাত, জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইফতেখার চৌধুরীসহ দুই থানার পুলিশ দল। 

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিশ্বজিৎ কুমার পাল বলেন, ‘আমাদের কাছে খবর আসে ব্যবসায়ী নোমান হোসেন খোলা বাজারে টিসিবি পণ্য বিক্রি করছেন। সরেজমিনে গিয়ে আমরা সত্যতা পাই এবং বেশ কিছু পণ্য উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় পাঁচ জনকে আটক করেছি।’

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close