বন্যায় তলিয়ে গেছে করোনার ‘মৃত্যুপুরী’ স্পেন

সুরমা টাইমস ডেস্ক::

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ভয়াবহতায় মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে স্পেন। তার উপর নতুন সংকট। টানা বৃষ্টিতে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হল দেশের পূর্ব অংশে। আবহাওয়া অফিস সূত্রে খবর, ৪ মাসের বৃষ্টি হয়েছে মাত্র ২৪ ঘণ্টায়! আর তার ফলে পূর্ব স্পেনের অধিকাংশ এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

ইউরোপের দেশ স্পেনে ভয়ঙ্কর দাপট দেখাচ্ছে ভয়াল করোনা। এরই মধ্যে দেশটি প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বলি হয়েছেন ১১ হাজার ৭৪৪ জন মানুষ। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৩৬ জন। গোটা দেশ এখন করোনা মোকাবেলায় ব্যস্ত। দেশজুড়ে জারি হয়েছে লকডাউন। শোনা যাচ্ছে পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ যে লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়ানো হবে। এই পরিস্থিতিতে দেশের পূর্ব অংশে বন্যা পরিস্থিতিতে কার্যত ঘুম ছুটেছে প্রশাসনের।

সরকারি সূত্রে খবর, স্পেনে চারমাসে যত বৃষ্টি হয়, সেই একই পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে মাত্র ২৪ ঘণ্টায়। কাস্তেলোঁ প্রদেশের রাজধানী কাস্তেলোঁ দে লা প্লানায় প্রায় ১ লক্ষ ৭০ হাজার মানুষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্পেনের আবহাওবিদরা জানিয়েছেন, বছরের এই সময় সাধারণত ৪২ মিলিমিটার মতো বৃষ্টিপাত হয়। কিন্তু ২৪ ঘণ্টায় (৩১ এপ্রিল থেকে ১ মার্চ) বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৪৭ মিলিমিটার। তারপর থেকে হালকা ও মাঝারি বৃষ্টি তো চলছেই। ফলে পূর্ব স্পেন কার্যত বন্যায় তলিয়ে গেছে। বৃষ্টির জেরে স্পেনের ভ্যালেন্সিয়ার উপকূলের অবস্থাও বেশ খারাপ। ১৯৭৬ সালের পর, গত ৩০ বছরে ২৪ ঘণ্টায় এতটা বৃষ্টিপাত আর কোনও বছর হয়নি। ২৪ ঘণ্টা বা একদিনের হিসেবে গত কয়েক বছরে এটি রেকর্ড বৃষ্টি। যার জেরে স্পেনের আলমাসোরা বুরিয়ানা এবং ভিলাফ্র্যাঙ্কা শহর ভাসছে পানিতে।

তার উপর উত্তরাঞ্চলের ডেজার্ট ডি লেস পামেস পর্বতমালা থেকে প্রবল বেগে নেমে আসছে বৃষ্টির পানির ঢল। ফলে পরিস্থিতি হয়েছে আরও ভয়াবহ। বাড়িঘর, রাস্তাঘাট সবই প্রায় ডুবতে বসেছে। এলাকায় উদ্ধারকাজে নেমেছে দমকল বাহিনী। বন্যায় আটকে পড়া মানুষদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তারা। এখনও চলছে উদ্ধারকাজ। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও জানা যায়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close