‘করোনা’:স্থবির শ্রীমঙ্গলে সরব প্রশাসন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি::

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের পরিস্থিতির কারণে সারাদেশের ন্যায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলেও টানা কয়েকদিন স্থবির হয়ে পড়েছে সবধরণের কার্যক্রম। ফলে বিপাকে পড়েছেন ব্যবসায়ীসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ। কর্মহীন হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ।

অঘোষিত লকডাউনে বন্ধ রয়েছে যানবাহন চলাচল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। যার কারণে চরম দুর্ভোগে রয়েছেন এলাকার নিম্ন আয়ের খেটে-খাওয়া, দিন-মজুর, শ্রমজীবী, দুস্থ ও অসহায় মানুষ।

সরকারি নিয়মনীতি মেনে দুর্ভোগে থাকা এসব মানুষের সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা ও থানা পুলিশ প্রশাসন। দুস্থ ও অসহায় মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় ও জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিনের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্বাহী অফিসার মো. নজরুল ইসলামের তত্ত্বাবধায়নে ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুর রহমান মামুনের পরিচালনায় করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধসহ অসহায় মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে বিরামহীনভাবে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকে করোনা মোকাবেলায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। নিজের নিরাপত্তার কথা চিন্তা না করে দেশ এবং দেশের মানুষকে করোনা থেকে মুক্ত রাখতে নানা প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। কখনো তিনি সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে লিফলেট নিয়ে ছুটে চলেছেন এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। কখনো আবার মানুষের মাঝে বিতরণ করছেন মাস্কসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী।

এদিকে থেমে থাকেননি শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশও। সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ সার্কেল) মো. আশরাফুজ্জামানের নেতৃত্বে শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেকের পরিচালনায় করোনা প্রতিরোধে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে দিন রাত দৌড়ে বেড়াচ্ছেন। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পরিচালনা করছেন শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের মনিটরিং করাসহ সার্বক্ষণিক সমন্বয় করে চলেছেন স্বাস্থ্য বিভাগ, থানা পুলিশ ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে।

এদিকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করার পাশাপাশি টানা কয়েকদিন সব ধরণের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ায় দুর্ভোগে থাকা নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী, দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের দুর্ভোগ লাঘবে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ প্রশাসন।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামানের নেতৃত্বে শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেকের পরিচালনায় থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সোহেল রানা, পুলিশ অপারেশন নয়ন কারকুনসহ পুলিশ সদস্যরা কখনো রাতের আধারে, কখনো দিনের আলোতে, কখনো পড়ন্ত বেলায়, কখনো গোধূলি সন্ধ্যায় বস্তা ভর্তি চাল, ডাল, আলু, তেল, লবণ, পেঁয়াজ ও সাবানসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলেছেন দুস্থ ও অসহায় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে। ইতোমধ্যে তিনি বস্তির বাসিন্দা, গণপরিবহন শ্রমিক, দিনমজুর, ইজিবাইক চালক ও সেলুন শ্রমিকসহ নানা শ্রমজীবী মানুষের মাঝে বিতরণ করেছেন খাদ্য সামগ্রী। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এসব কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান জানান, করোনা সংকট দীর্ঘায়িত হলেও দরিদ্রদের এই খাদ্য সহায়তা অব্যাহত থাকবে। দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াতে তিনি বিত্তবানদের প্রতিও আহবান জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, যারা মধ্যবিত্ত পরিবারের তারা মুখ খুলে না পারে কাউকে বলতে না পারে সহিতে। ঘরে খাদ্য সামগ্রী নেই চক্ষু লজ্জায় তারা কাউকে বলতে পারছেন না। এরকম কেউ থাকলে পুলিশকে জানালে বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়ে আসবে বলে জানান তিনি।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুর রহমান মামুন জানান, আমরা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সকলস্থরের জনসমাগম নিরুৎসাহিত করেছি। আমাদের রেসপন্স টিম করোনা প্রতিরোধ ও শনাক্তে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close