বিয়ানীবাজার লকডাউন: কিলা খাইয়া বাছতাম ?

কিলা খাইয়া বাছতাম’ শিরোনাম দেখে চমকে উঠবেন যে কেউ। এমনটা বলছিলেন বিয়ানীবাজারের এক দরিদ্র হোটেল কর্মচারী। নির্বাচনের সময় ভোটের মাঠ গরম থাকে লাখ টাকার ছড়াছড়ি। বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়া কিংবা পথসভা এসবের সাথে জন্মের পর থেকে পরিচিত প্রবাসী অধ্যুষিত বিয়ানীবাজারের লোকজন। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে পুরো দেশই লকডাউনের মত অবস্থা বিরাজ করছে আর তাতে পেটে টান পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষের।

রাজনীতির দিক দিয়ে সিলেটের মধ্যে সমৃদ্ধ একটি উপজেলা বিয়ানীবাজার। এখানে জাতীয় পর্যায় থেকে তৃনামুল পর্যায়ের নেতৃত্ববৃন্দ আছেন,তবে দেশের ক্রান্তিলগ্নে দরিদ্র খেটে খাওয়া মানুষের পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর ছাড়া পাশে নেই কেউ। বিষয়টি অনেকটা ভাবায় এই অঞ্চলের মানুষের।

পথের মোড়ে দাঁড়িয়ে দু’জনকে গল্প করতে দেখা যায় বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে। কথার মধ্যে একটি মেসেজ ছিল আসলেই কি জনসেবা নির্বাচনের সময় সীমাবদ্ধ? তাদের এই প্রশ্নের উত্তরটা জানা নেই কারো। সিলেটের মেয়র আরিফ কিংবা সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন কামরান বিয়ানীবাজার পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর সহ সিলেটের রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ যেখানে এগিয়ে আসছেন নিস্বার্থে মানব সেবায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌছে দিচ্ছেন ত্রাণ তখন ব্যাতিক্রম বিয়ানীবাজারের নেতারা।

তবে অন্যরা হোম কোয়ারান্টাইন পালন করলে বাড়ি বাড়ি মানুষের সেবায় চষে বেড়াচ্ছেন পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর। প্রশংসা কুড়িয়েছেন বিয়ানীবাজারে মানুষের রাজনীতির ঊর্ধ্বে এসে সবাই সাধুবাদ জানাচ্ছেন তার এই মানব সেবাকে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close