হবিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের হাতে তিন সাংবাদিক লাঞ্ছিত

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ::

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে নিম্ন আয়ে মানুষের মাঝে সরকারী ত্রাণ বিতরণে অনিয়মের চিত্র তুলে ধরায় করায় সাংবাদিক শাহ সুলতান আহমেদকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পিটিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন ও তার লোকজন।

এসময় তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে সাংবাদিক এম মুজিবুর রহমান ও বুলবুল আহমেদকেও মারপিট করে তারা।

গতকাল বুধবার (১লা এপ্রিল) বিকেলে আউশকান্দি এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, সম্প্রতি দরিদ্রদের জন্য আসা সরকারী ত্রাণ বিতরণ করেন আউশকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন। কিন্তু তিনি ১০ কেজি করে চাল দেয়ার পরিবর্তে প্রত্যেককে ৫ কেজি করে প্রদান করেন।

এনিয়ে দৈনিক প্রতিদিনির সংবাদের নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ও উপজেলা সাংবাদিক ফোরামের সাবেক সভাপতি শাহ সুলতান আহমেদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে সাধারণ মানুষের বক্তব্যসহ অনিয়মের বিষয়টি তুলে ধরেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যান হারুনসহ ২০/২৫ জন লোক সাংবাদিক শাহ্ সুলতানের উপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে তারা ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে তাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। এ সময় তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে দূর্বৃত্বরা সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ও বুলবুল আহমেদকেও মারপিট করে।

পরে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করেন এবং আশংঙ্কাজনক অবস্থায় সাংবাদিক শাহ সুলতানকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আলমগীর মিয়া বলেন, ‘ইউপি চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান অসহায় মানুষের জন্য আসা ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম করেছেন। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা সংবাদ প্রচারে গেলে তাদেরকে মারপিট করা হয়। অথচ এখনও চেয়ারম্যান এলাকায় বুক ফুলিয়ে ঘুরাঘুরি করছে। এ ব্যাপারে আমরা চেয়ারম্যান দ্রুত গ্রেফতাদের দাবি জানালে প্রশাসনের লোকজন নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের নের্তৃবৃন্দকে নিয়ে বসেছেন।’

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন চেয়ারম্যানের উপর উত্তেজিত হলে পুরিশ তাদের শান্ত করে। তবে এ ব্যাপারে নির্যাতিত সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close