সিলেটে হোম কোয়ারেন্টাইনে ২৮৯ প্রবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের ২৮৯ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। এছাড়া নগরীর শহীদ সামছুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে থাকা তিনজনের মধ্যে একজনকে রেখে বাকী দুইজনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল।

তিনি বলেন, বিদেশফেরত ব্যক্তিদের পর্যবেক্ষণে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ কঠোর অবস্থানে রয়েছে। খবর পাওয়ার সাথে সাথেই তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাড়িতে সার্বক্ষণিক স্বাস্থ্যকর্মী ও স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারি করছে।

এর আগে সিলেটে দুবাইফেরত এক যুবক ও সৌদিফেরত এক নারীকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তবে তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস না পাওয়ায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়ে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

এদিকে আজ মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) করোনাভাইরাস-সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, দেশে আরও দুজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের নমুনা সংগ্রহের মাধ্যমে পরীক্ষা করার পর ওই দুজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ জনে।

করোনাভাইরাস এখনও সামাজিকভাবে ছড়িয়ে পড়েনি উল্লেখ করে তিনি এটি নিয়ন্ত্রণে গণপরিবহনে চলাফেরাসহ গণজমায়েত পরিহারের আহ্বান জানান। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রকোপ সেভাবে না পড়লেও বিশ্বব্যাপী এটি মহামারি হিসেবে ছড়িয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যে মারা গেছেন সাত হাজার ১৭১ জন। আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৮২ হাজার ৬০৯।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, ‘বিদেশ থেকে আসা তিন সাড়ে তিন লাখ মানুষকেই বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। আমাদের যেহেতু কমিউনিটি ইনফেকটেড হয়নি, সুতরাং ১৭ কোটি মানুষের কল করার তো কোনো প্রয়োজন নেই। আতঙ্কিত হবেন না। ঠান্ডা, জ্বর, কাশি হলেই যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন— এটা মনে করে শঙ্কিত হবেন না।’

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close