তাহিরপুরে ওরস ও বারুণী মেলায় দোকানপাট নিষিদ্ধ

তাহিরপুর প্রতিনিধি ::

সুনামগঞ্জে তাহিরপুরে শাহ আরেফিন(রহঃ) ওরস উদযাপন ও পণতীর্থ স্নান উপলক্ষে বারুণী মেলাতে দোকানপাট, কাফেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একই সাথে লোকজনের বড় ধরনের সমাগমকে নিরুৎসাহিত করার বিষয়েও আলোচনা চলছে।

মঙ্গলবার (১০ই মার্চ) মুসলিম ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এই দুই উৎসবকে সামনে রেখে শাহ আরেফিন (রহঃ) আস্তানায় আইন শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে ওরস উদযাপন কমিটির সভাপতি তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যেহেতু ওরশ ও স্নান দুটোই ধর্মীয় উৎসব এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এ স্নান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সুতরাং এসব ধর্মীয় অনুষ্ঠান তো বন্ধ করার সুযোগ নেই। তবে সম্প্রতি সারা বিশ্বের ন্যায় দেশেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আশংকায় এসব অনুষ্ঠানে বড় সমাগম যাতে না হয়, এ দিকটি সভায় আলোচনা করা হয়েছে। ওরস ও বারুণী মেলায় দোকানপাট, কাফেলা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তাছাড়া ওরসের আনুষ্ঠানিকতা কতদিন রাখা যায় এ বিষয়ে আগামী রোববার সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসন সিদ্ধান্ত জানাবেন।

এছাড়া আগত পুর্ণার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তা প্রদানে প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইন শৃঙ্খলা বাহিনীসহ কমিটির নিয়োগকৃত স্বেচ্ছাসেবকগন ৩ দিনব্যাপী দায়িত্ব পালন করবেন জানিয়ে তিনি বলেন, বিশুদ্ধ পানীয়জল,পয়োনিষ্কাশনের ব্যবস্থা, মেডিকেল টিম, সীমান্ত অনুপ্রবেশ রোধে সীমান্ত এলাকায় বাঁশের বেড়াসহ অন্যান্য সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সভায় ওরস উদযাপন কমিটির সভাপতি তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সার্কেল এসপি বাবুল আখতার, তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন খন্দকার লিটন, উদযাপন কমিটির সহ-সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, তসকির আহমেদ, বাদাঘাট সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ জুনাব আলী, আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাইয়ুম, আওয়ামী লীগ নেতা সুজাত মিয়া, সেলিম হায়দার প্রমুখ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close