১৭ হাজার কোটি টাকা এক দিনেই হারালো পুঁজিবাজার

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে দিনের শুরু থেকে বিক্রয় চাপে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক কমেছে ২৭৯ পয়েন্ট। এসময় একদিনের ব্যবধানে ১৭ হাজার ২৯১ কোটি ৩৮ লাখ টাকার বাজার মূলধন হারালো পুঁজিবাজার।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) শেয়ারহোল্ডার পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, করোনা আতঙ্কে সোমবার ভারত-পাকিস্তানের মত বিশ্ব পুঁজিবাজারে ধস হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারেও।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এতে অর্থ ও স্বাস্থ্য উভয় নিরাপদ থাকবে। এসময় প্যাসিক সেল বন্ধের পরামর্শ দেন তিনি।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, সোমবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ২টির, দর কমেছে ৩৫২টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় ডিএসইতে ২০ কোটি ৯৯ লাখ ২৭ হাজার ১৪৫টি শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

দিনশেষে ডিএসইতে ৪৯৯ কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে ৪২৮ কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছিল। অর্থাৎ দর পতনের দিনেও লেনদেন বেড়েছে পুঁজিবাজারে। যা শেয়ার বিক্রয়ের নির্দেশনা দিচ্ছে।

লেনদেন শেষে ডিএসইর সার্বিক মূল্য সূচক ডিএসইক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ২৭৯.৩২ পয়েন্ট কমেছে। যা ডিএসইএক্স সূচক চালুর পরে সর্বোচ্চ ও রেকর্ড। এসময় শরীয়াহ্ ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর মূল্যসূচক ডিএসইএস ও ডিএস-৩০ সূচক যথাক্রমে ৬৯.৭৯ পয়েন্ট ও ৮৮.৮৯ পয়েন্ট কমেছে।

রোববার দিনশেষে ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৩১ হাজার ৫১০ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। সোমবার দিনশেষে ডিএসইর সার্বিক বাজার মূলধন ৩ লাখ ১৪ হাজার ২১৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা স্থিতি পেয়েছে। অর্থাৎ এক দিনের ব্যবধানে বাজার মূলধন কমেছে ১৭ হাজার ২৯১ কোটি ৩৮ লাখ টাকা।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close