জৈন্তাপুর সীমান্ত দিয়ে গরু মহিষ প্রবেশ নিষিদ্ধ

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি ::

বিশ্বজুড়ে যখন করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করেছে ঠিক তখনও একমাত্র সিলেটের সীমান্ত দিয়ে অবাধে প্রবেশ করছে গরু-মহিষ ও মাদক দ্রব্য। বিশেষ করে জৈন্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অবৈধ ভাবে প্রতিদিন হাজার হাজার গরু মহিষ প্রবেশ করছে ভারত থেকে। এতে অনেক রোগাক্রান্ত পশুও রয়েছে যা থেকে করোনা ভাইরাস’র সংক্রমনের আশংকাও থাকতে পারে।

যেখানে তামাবিল স্থল বন্দর দিয়ে যাত্রী আসার সময় করোনা ভাইরাস পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। অথচ বিভিন্ন দেশ থেকে অবৈধভাবে আসা গরু-মহিষের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয় না। ভারত থেকে আসা নাগরিকদের কোন রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষায় উদাসীন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

গতকাল সোমবার (৯ই মার্চ) সকালে জৈন্তাপুর উপজেলার আইনশৃংখলা কমিটির সভায় বক্তারা এসব বিষয় কথা উত্থাপন করলে সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা পারভীন বলেন, যেহেতু গবাদি পশু থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হচ্ছে। এসময় তিনি জৈন্তাপুর উপজেলার সকল সীমান্ত দিয়ে অতীতের ন্যায় অবৈধভাবে গরু-মহিষ ও ভারতীয় নাগরিক প্রবেশে কড়া নজরদারী রাখতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কে সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রদান করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা পারভীনের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ, জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বনিক, জৈন্তাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান, দরবস্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার, চারিকাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী তোফায়েল, নিজপাট ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. ইয়াহিয়া, জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহেদ আহমদ, উপজেলা কৃষি অফিসার ফারুক হোসাইন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মো. সালাহ উদ্দিন, শিক্ষা অফিসার আব্দুল জলিল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুবল চন্দ্র বর্মন, জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরওয়ার বেলাল, বিজিবির নায়েক সুবেদার আব্দুর রাজ্জাক, দূরুল হুদা, কামাল হোসেন প্রমুখ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close