ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সিলেট জেলা পুলিশের শ্রদ্ধাঞ্জলী

স্টাফ রিপোর্টার :: ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উপলক্ষে সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্সে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধান্জলী অর্পন করেছে সিলেট জেলা পুলিশ। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম এর নেতৃত্বে আজ শনিবার বিকাল ৩ ঘটিকার সময় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধান্জলী অর্পন করা হয়।

শ্রদ্ধান্জলী অর্পন অনুষ্টানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি প্রাপ্ত (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দক্ষিনের দায়িত্বে) ইমাম মোহাম্মদ সাদীদ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মাহবুবুল আলম,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) লুৎফর রহমান,সহকারী পুলিশ সুপার (ডিএসবি) আনিসুর রহমান খান প্রমুখ। এদিকে দুপুর থেকেই সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্সের প্রধান ফটকে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষন সম্প্রচার করা হয়।

এবং বিকাল ৩.৩০ ঘটিকার সময় পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শেডে বড় পর্দায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে রাজনৈতিক বর্নাঢ্য জীবনের উপর নির্মিত বিভিন্ন ডকুমেন্টারী দেখানো হয় এবং মুক্তিযুদ্ধের উপর নির্মিত অত্যন্ত জনপ্রিয় বাংলা ছায়াছবি আগুনের পরশমনি প্রদর্শন করা হয়। যেখানে সিলেট জেলা পুলিশের সদর কেন্দ্রিক কর্মরত সকল ফোর্স অফিসার উপস্থিত ছিল। ৭ মার্চের তাৎপর্য উল্লেখ করে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম বলেন মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক সম্মোহনী ভাষনই ছিল মূলত মুক্তিযুদ্ধের পরোক্ষ ঘোষনা।

বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠের ঘোষনা “ এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম” ছিল মূলত স্বাধীনতার ডাক।

এই ঘোষনার মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা যুদ্ধের চূড়ান্ত রুপরেখা দিয়েছিলেন।স্বাধীনতাকামী বাঙ্গালীরা ৭ ই মার্চের ভাষনে অনুপ্রানিত হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনের জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছিল।অবশেষে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধের পর আমরা পেয়েছিলাম প্রিয় লাল-সবুজের স্বাধীন বাংলাদেশ।কাজেই আমার জাতীয় জীবনে ৭ ই মার্চের গুরত্ব এবং তাৎপর্য অপরিসীম। আজকের দিনে সিলেট জেলা পুলিশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরন করে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close