সিলেটের তালিকাভুক্ত ডাকাত ‘গুল্লি কামাল’ গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম এর নির্দেশনায় চলমান তালিকাভুক্ত ডাকাতদের বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে গতকাল বুধবার ওসমানীনগর থানা পুলিশ ওসমানীনগর থানার বাংলা বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশের তালিকাভুক্ত ডাকাত আবুল কাশেম প্রকাশিত গুল্লি কামাল (৪৫) কে গ্রেফতার করেছে। সে জকিগঞ্জ থানার শাহগলি প্রকাশিত খিলোগ্রাম সাকিনের মৃত আনু মিয়ার ছেলে। সে একাধিক মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামী।

মামলার সূত্রে জানা যায়, আবুল কালাম ওরফে আবুল কাশেম গুল্লি কামাল বৃহত্তর সিলেটে এলাকার চিহ্নিত ডাকাত। তার নামে বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতির মামলা রয়েছে। সে গত জানুয়ারি মাসের ২৯ তারিখ ওসমানীনগর থানার বুরুঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মকদ্দুছ আলীর বাড়ির ডাকাতির সাথে জড়িত ছিল বলে পুলিশ জানায়।

গত বুধবার (২৬শে ফেব্রুয়ারি) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওসমানীননগর থানা ওসি (তদন্ত) এস এম মাইনুদ্দিন ও এসআই সুজিত চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করেন।

ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশেদ মোবারক আটকের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাকে আদালতে মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য গত ২৯শে জানুয়ারী ওসমানীনগর থানার বুরুঙ্গা এলাকার সাবেক চেয়ারম্যান মকদ্দুছ আলীর বাড়িতে সংঘটিত ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ডাকাত গুল্লি কামাল জড়িত মর্মে তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।সেই ঘটনায় রুজুকৃত ডাকাতি মামলায় তাকে আজ বৃহস্পতিবার কোর্টের মাধ্যেমে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম এর বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) লুৎফর রহমান জানান, সাধারণত শীতকালে সিলেটর বিভিন্ন এলাকায় সংঘবদ্ধ ডাকাতদল হানা দেওয়ার চেষ্টা করে থাকে। তাই সিলেট জেলায় ডাকাতি প্রতিরোধে সাম্প্রতিক সময়ে ডাকাতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।এরই প্রেক্ষিতে কয়েকজন ডাকাত সর্দার পুলিশের সাথে গুলাগুলি করতে গিয়ে নিহত হয়েছে এবং প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোন ডাকাত গ্রেফতার হচ্ছে। যার ধারাবাহিকতায় তালিকাভুক্ত ডাকাত গুল্লি কামাল গ্রেফতার হয়েছে। ডাকাতদের বিরুদ্ধে এধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close