তাহিরপুরে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন

তাহিরপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বিয়ের দাবি ও স্ত্রীর হিসেবে স্বীকৃতির দাবিতে প্রেমিক মোক্তার মিয়া ওরফে আকাশের বাড়িতে গত ৪ দিন ধরে অনশন করছে দরিদ্র পরিবারের এক তরুণী। ওই তরুণী বাড়িতে যাওয়ার পর থেকেই প্রেমিক মোক্তার ওরফে আকাশ বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। প্রেমিক মোক্তার মিয়া উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের তেলীগাও গ্রামের ঠাকুর হাটির উসমান মিয়ার ছেলে।

গত সোমবার বিকাল ৩টা থেকে উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের তেলীগাও গ্রামের এরশাদ সর্দারের বাড়িতে অনশন করছে এই তরুণী।

জানা গেছে, প্রায় ২ বছর আগে হতদরিদ্র তরুণীর সঙ্গে মোক্তার মিয়ার আকাশের প্রথমে পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে একে অপরের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এর মধ্যে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রেমিক মোক্তার মিয়া তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। গত ১৯ ফেব্রুয়ারী হযরত শাহ ক্বারী নুরালী শাহর (র) ওরসের রাতে প্রেমিক মোক্তার মিয়া ওই তরুণীর ঘরে প্রবেশ করে দেখা করার সময় তরুণীর মা বাবা তাকে হাতে নাতে আটক করে। এক পর্যায়ে প্রেমিক মোক্তার মিয়া বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে এখান থেকে চলে আসে। এরপর থেকে সে তরুণীকে এড়িয়ে চলতে থাকে। এক পর্যায়ে ওই তরুণী কোন উপায় না পেয়ে বিয়ের দাবীত প্রেমিক মোক্তার মিয়া বাড়িতে গত সোমবার থেকে অনশন শুরু করে। অনশনের তিনদিন পরও তাকে স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিয়ে প্রেমিক মোক্তার মিয়ার পরিবার লোকজন তরুণীকে বেধড়ক মারপিট করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

তরুণীর বৃদ্ধা মা জানান, তারা গরিব মানুষ, দিন এনে দিন খায়। সোমবার সকালে কাজের সন্ধানে তারা অনত্র চলে গিয়ে বিকালে এসে বাড়িতে দেখেন তাদের মেয়ে ঘরে নেই। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন তার মেয়ে প্রেমিক মোক্তার মিয়ার বাড়িতে বিয়ের দাবীতে অবস্থান করছে। তিনি বলেন, তারা প্রভাবশালী হওয়ায় আমার মেয়েকে স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিয়ে মারপিট ও নির্যাতন করছে।

তরুণীর বাবা বলেন, মোক্তারের বড় ভাই এরশাদ সর্দার বারবার পুলিশের ভয় দেখাচ্ছে তাদের এবং টাকা দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, ইজ্জতের মূল্যতো আর টাকা পূরণ হয়না।

মোক্তার মিয়ার বড় ভাই এরশাদ সর্দার জানান, এক তরুণী গত সোমবার থেকে তাদের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান করছে। তার ভাই মোক্তার তরুণী বাড়িতে আসার পূর্ব থেকেই বাড়িতে নেই। একটি প্রতিপক্ষ তাদের হয়রানী ও ফাঁসানোর জন্য এমনটা করছে বলে তিনি দাবী করেন।

শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ড সদস্য নুরুল আমিন জানান, গত সোমবার থেকে এক তরুণী মোক্তারের বাবা উসমান মিয়ার বাড়ীতে বিয়ের দাবীতে অবস্থান করছে। তিনি বলেন, এ ঘটনাটি উভয় পক্ষের লোকজনকে বলে দেয়া হয়েছে, বিষয়টি সামাজিকভাবে দ্রুত শেষ করার জন্য।

তাহিরপুর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান জানান, এমন একটি ঘটনা শুনে তাহিরপুর থানার এস আই জহর লালকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, ভিকটিমের পরিবার থেকে এ ব্যাপারে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close