হাজী রাশীদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায়ত দুই শিক্ষকের স্মরণে লন্ডনে দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত

লন্ডনে গ্রেটার কামাল বাজার ডেভলাপমেন্ট ট্রাষ্ট এর উদ্যোগে সিলেট সুরমা থানার বৃহত্তর কামাল বাজারের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ হাজী রাশীদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী শিক্ষক প্রায়াত সামসুদ্দীন আহমেদ এবং আবু জফর কওসর আহমেদ (ছোট মাওলানা) স্মরণে সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৪ ফ্রেবুয়ারী সোমবার ইষ্ট লন্ডনের ইমপ্রেশন ইভেন্ট এর হল রুমে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাহফুজুর রাহমান মিল্লাত খাঁন।

গ্রেটার কামাল বাজার ডেভলাপমেন্ট ট্রাষ্ট ইউকে এর চেয়ারপারসন এমদাদুর রাহমান এর সভাপতিত্বে এবং প্রেস ও পাবলিসিটি সম্পাদক সৈয়দ আনসার আলীর পরিচালনায় স্বগত বক্তব্যে রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার খাঁন। প্রায়াত শিক্ষকদ্বয়কে সৃতিচারণ করে বক্তব্যে রাখেন, সফল সংগঠক গিয়াস উদ্দিন আহমেদ রানা, মোজেফর আলী, ট্রাষ্টের ভাইস চ্যায়ারম্যান আব্দুল আহাদ, আব্দুল হান্নান, মরহুম শিক্ষক সামসুউদ্দীন আহমেদ স্যারের বড় সন্তান হেলাল আহমেদ, পারভেজ আহমদ, মোঃ হাফিজুর রাহমান, হজর আলী, আনোয়ার হোসেন ফজল, পারভেজ আহমেদ, কদর আলী, ট্রাষ্টের যুগ্ম সম্পাদক কুতুব উদ্দিন, কোবের আহমেদ, কামরুল আহমদ, রাহাত খাঁন, হারুন রশীদ, শামছুল ইসলাম লাহিন সহ আর অনেক।

উপস্তিত বক্তারা স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে মেধানির্ভর আগামী প্রজন্ম বির্নিমানে তাদের মতো শিক্ষকের অভাব আমরা সারা জীবন অনুভব করব। প্রয়াত শিক্ষক উনারা আর নেই। আমরাও এক সময় চলে যাব। মানুষ তার পদ পদবি দ্বারা বেঁচে থাকে না। মহৎ কর্ম নিয়ে বেঁচে থাকে।কাজেই এই  দুজন স্যার আমাদের মনের মাঝে বেঁচে থাকবেন।বিভ্রান্তির মধ্যে সত্যতা থাকেনা। সত্যতা থাকে সরলতায়। আর এই দুজন ছিলেন সেরকমই মানুষ। শুধু যে তারা তা নয়, আমরা আজও শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি বিদ্যালয়ের সবেক শিক্ষক মরহুম আমজাদ হোসেন, মরহুম আজিজুর রাহমান, মরহুম শফিকুর রাহমান, সাবেক প্রধান শিক্ষক বাবু শুশীল রন্জন দ্বে এবং সুজিত ভূষণ দাস। স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, আব্দুল মন্নান, লুৎফুর রাহমান পাবেল, ছাদ মিয়া, শামিম আহমদ, দেওলোয়ার হোসেন , সোহেল আহমেদ সহ স্কুলের সাবেক অসংখ্য ছাত্র। আলোচনা শেষে প্রয়াত দুই শিক্ষকের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা গোলাম আম্ভিয়া।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close