নগরীতে বিপাকে পড়তে পারে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা

সিলেটে দেশের প্রথম ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ লাইন পরীক্ষামূলকভাবে চালু হয়েছে এটা যেমন পুরো সিলেটবাসীর জন্য খুশির খবর তেমনি খারাপ খবর হচ্ছে এর পড়েতে যাচ্ছে ইন্টারনেট সেবায়।

কারণ ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ লাইন চালুর পর নগর থেকে বিদ্যুতের খুঁটি সরালে সিলেটে চালু থাকা প্রায় ৩০টি ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের ইন্টারনেট সেবা বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে ধারণা করছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। তাই এমনটি হলে বিপাকে পড়তে পারে নগরীতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা।

এক বিশেষ সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রুহুল আলম।

বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে সিসিকের সকল নাগরিকবৃন্দের অবগতির জন্য জানানো হয়েছে, “বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) এর বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় আম্বরখানা-ইলেকট্রিক সাপ্লাই হয়ে চৌহাট্টা পয়েন্ট ও সিটি পয়েন্ট হয়ে সিলেট সার্কিট হাউস পর্যন্ত ও চৌহাট্টা পয়েন্ট হয়ে রিকাবিবাজার থেকে নবাব রোডস্থ বিপিডিবির বাগবাড়ী অফিস পর্যন্ত এবং পূর্ব জিন্দাবাজার হয়ে জেলরোড পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তার উভয় পার্শ্বে ওভারহেড বৈদ্যুতিক তারসমূহ ভূগর্ভে স্থানান্তরের কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে।

এসব এলাকায় ওভারহেড বৈদ্যুতিক তারসমূহ ভূগর্ভে স্থানান্তরের ফলে সেখানে স্থাপিত সকল বৈদ্যুতিক খুঁটি এবং ওভারহেড তারগুলো বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) অপসারণ করবে। এইসব বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণের ফলে খুঁটিতে আটকানো ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের (আইএসপি) ক্যাবলগুলোও একইসঙ্গে অপসারণ করা হবে। যার ফলে ইন্টারনেট সংযোগ বিঘ্নিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, এ বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি), ন্যাশনওয়াইড টেলিকমিউনিকেশন ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক (এনটিটিএন) এবং আইএসপিয়ের সাথে কয়েক দফা বৈঠক করেও কোন সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায়নি। তাই এ ব্যাপারে আইনগতভাবে সিলেট সিটি করপোরেশনের কোন দায়-দায়িত্ব নেই।

এজন্য আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে আইএসপিগণকে এনটিটিএন কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার অনুরোধ জানায় সিসিক। অন্যথায় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য সংশ্লিষ্টরা দায়ী থাকিবে বলেও জানায় সিলেট সিটি করপোরেশনের বিদ্যুৎ বিভাগ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close