বাহুবলের-গোলগাঁও রোডে ট্রাক্টর চলাচল বন্ধে ৮ গ্রামবাসীর অভিযোগ

বাহুবলের ইসলামপুর-গোলগাঁও রোডে মাটি ও বালুবাহী যন্ত্রদানব ট্রাক-ট্রাক্টর চলাচল বন্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন স্থানীয় ৮ গ্রামবাসী।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার দশকাহনিয়া, ইসলামপুর, ডুমগাঁও, কসবাকরিমপুর, পশ্চিম ভাদেশ্বর, নিজগাঁও, পূর্ব ভাদেশ্বর ও সুন্দ্রাটিকি গ্রামের শতাধিক ভুক্তভোগীর যৌথ স্বাক্ষরিত এক অভিযোগপত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে জমা দেওয়া হয়।

অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, ইসলামপুর-গোলগাঁও রাস্তাটি উলে¬খিত গ্রামগুলোর মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। রাস্তটি ভাদেশ্বর ইউনিয়নের সর্ববৃহৎ ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। রাস্তা ঘেষেই হাট-বাজার, দুইটি হাই স্কুল, ৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অগণিত মাদরাসা, মসজিদ ও দোকানপাঠ রয়েছে। এ রাস্তা দিয়ে বাহুবল উপজেলার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও হাট-বাজার ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে থাকে। কিন্তু আঞ্চলিক এ সড়কটি ব্যবহার করে স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী যন্ত্রদানব ট্রাক-ট্রাক্টর ব্যবহার করে অবৈধ মাটি ও বালু বহন করছে। এতে প্রতিদিন ঘটছে ছোট-বড় অনেক দূর্ঘটনা। এসব দূর্ঘটনার কবলে পড়ে অনেকেই মারা যাচ্ছে এবং পঙ্গুত্ববরণ করছেন। এছাড়া দিনরাত শতশত ট্রাক-ট্রাক্টরের যাতাকলে ভাঙছে পিচঢালা পথ। পথচারীদের চলাচলেও ঘটছে মারাত্মক বিঘ্ন। এসব বিষয় নিয়ে প্রায়ই ট্রাক-ট্রাক্টর চালকদের সাথে স্থানীয় লোকজনের ঝগড়া-বিবাদ হচ্ছে। ট্রাক-ট্রাক্টরের মাটি পড়ে পিচঢালা পথে শুষ্ক মৌসুমে ধুলোবালি সৃষ্টি হচ্ছে। এসব ধুলোবালি উড়ে আশপাশের পরিবেশদূষণ ছাড়াও স্থানীয় লোকজনের স্বর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট জনিত নানা রোগ-ব্যাধি সৃষ্টি হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমে পিচঢালা পথে মাটি গলে রাস্তাটি প্রচন্ড পিচ্ছিল হয়ে ঘটছে দূর্ঘটনা।
উক্ত রাস্তা দিয়ে স্থানীয় লোকজনের নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন যাতায়াত নিশ্চিতকরণ, ধুলোবালি ও প্যাঁক-কাঁদার বিড়ম্বনা থেকে মুক্তি এবং আঞ্চলিক সড়কটি রক্ষণাবেক্ষণের স্বার্থে মাটি ও বালুবাহী ট্রাক-ট্রাক্টর চলাচল নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য এলাকাবাসী আবেদন জানিয়েছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close