মোবাইল ম্যাসেজ দেখিয়ে সিলেটে বিআরটিসি বাস বন্ধের নির্দেশ, বিপাকে কর্তৃপক্ষ!

সুরমা টাইমস ডেস্ক :: গতকাল মঙ্গলবার (১৮ই ফেব্রুয়ারী) কোন লিখিত অভিযোগ ছাড়াই একটি মোবাইল ম্যাসেজ দেখিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক ডিসি) ফয়ছল মাহমুদ নগরীর আম্বরখানাস্থ মজুমদারী বিআরটিসি বাস ও কাউন্টার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন । এর ফলে বিপাকে পড়েছেন বিআরটিসি বাস কর্তৃপক্ষ।

বিআরটিসি বাস সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার ম্যাসেজটির সংবাদ আম্বরখানা মজুমদারী বিআরটিসি কাউন্টারে নিয়ে আসেন ট্রাফিক ডিসি ফয়ছল মাহমুদ। এসময় তিনি বিআরটিসি বাস কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে বিআরটিসির ম্যানেজার জুলফিকার আলী ও প্রশাসন অফিসার এনায়েতুল ইসলাম জাবির, টিআই মুহিব উদ্দিনকে ম্যাসেজ সম্পর্কে অবগত করেন।

এসময় তিনি জানান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী কর্তৃক সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়ার কাছে বিআরটিসি বাস ও কাউন্টার বন্ধের একটি মেসেজ পাঠিয়েছেন এবং যারা এই বিআরটিসি বাস পরিচালনার দায়িত্বে আছেন তাদের ম্যাসেজটি পড়িয়ে শোনানোর জন্য।

বিআরটিসির ম্যানেজার জুলফিকার আলী জানান, ট্রাফিক ডিসি ফয়ছল মাহমুদ আমাকে ফোন দিয়ে আম্বরখানা বিআরটিসি বাস কাউন্টারে আসতে বলেন এবং তিনি জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী নির্দেশ করেছেন এখান থেকে বিআরটিসি বাস ও কাউন্টার বন্ধ করে দিতে। কিন্তু এব্যাপারে কোন লিখিত অভিযোগ তিনি দেখাতে পারেননি ডিসি ট্রাফিক।

জুলফিকার আলী আরো জানান, সিলেটে অনেক অবৈধ পাবলিক বাস, সিএনজি স্ট্যান্ড গড়ে উঠেছে। যেখানে সেখানে অবৈধভাবে এসব যানবাহন পার্কিং করা হচ্ছে, কিন্তু সরকারি বাস রাখার জন্য কোন জায়গা কোথায় নেই। আমরা কোন সময় একসাথে দুটো বাস পার্কিং করিনি। টিকিট বিক্রির শেষে অন্য গাড়িটি এখানে আসে।

ট্রাফিক ডিসি ফয়ছল মাহমুদ জানান, আমরা অভিযোগ পেয়ে বিষয়টির বিআরটিসি বাস কর্তৃপক্ষকে অবগত করি। তিনি জানান, আমরা অভিযোগ পেয়েছি বিআরটিসি কর্তৃপক্ষের কোন পার্কিং ব্যবস্থা নাই এই কারনে তাদেরকে মজুমদারী হতে বিআরটিসি বাস ও কাউন্টার সরানো জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী কর্তৃক কোন অভিযোগ হয়েছি কিনা এব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, এব্যাপারে আমরা উনার পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ পাইনি।

এসময় বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ জানান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ জনগণের দূর্ভোগের কথা চিন্তাকরে ও সিএনজির দূর্ঘটনা থেকে জনগণকে রক্ষা করতে ২০১৯ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর বিআরটিসির চেয়ারম্যান বরাবর একটি ডিও লিটার দিয়ে সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ, ভোলাগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস চালুর করার অনুরোধ জানান।

যার ডাইরি নং বিআরটিসি সিলেট ডিপো- ৮৫২, তাং- ০২/১০/২০১৯। এর পরপরই বাংলাদেশ সরকারের সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ, গ্রাম হবে শহর এই লক্ষ্যে ২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর বিআরটিসি বাস সিলেট নগরীর আম্বরখানায় চালু করা হয়।

নেতৃবৃন্দরা জানান, বর্তমান সরকারের রূপকল্প নিরাপদ ও আধুনিক রাষ্ট্রীয় সড়ক পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলা লক্ষ্যে যাত্রীদের সেবা নিশ্চিত করাই এর লক্ষ্য। নির্ভরযোগ্য পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলা এবং দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার জন্য সিলেটের বিআরটিসি বাস ডিপোর উদ্বোধন করা হয়েছে। কিন্তু কোন অদৃশ্য ইশারায় হঠাৎ করে কোন নোটিশ ছাড়াই সিলেট বিআরটিসি বাস ও কাউন্টার বন্ধের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে তা আমাদের বোধগম্য নয়।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সিলেটে বিআরটিসি বাস উদ্বোবধনকালে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ সহ, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সদস্য আতিকুর রহমান সাজ্জাদ সহ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা তাজ উদ্দিন তাজ, আওয়ামীলীগের বিভিন্ন সিনিয়র নেতাকর্মী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ইউএনও সহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

কর্তৃপক্ষ জনগণের দূর্ভোগের কথা চিন্তা না করে হঠাৎ এ ধরনের হঠকারী সিদ্ধান্তের বিস্ময় প্রকাশ করেন। পাশাপাশি কর্তৃপক্ষ বিষয়টি সমাধানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সরকারের উর্ধ্বতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close