সুনামগঞ্জে গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ গুমের চেষ্টা!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর মদিনা আক্তার (৩৫) নামে এক গৃহবধূর লাশ গুমের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার লতারগাঁও পশ্চিমপাড়ার সবজি বাগান থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রবিবার সকালে এ ঘটনায় নিহতের স্বামী বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

নিহত মদিনা উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের গড়েরগাঁও গ্রামের পাথর শ্রমিক আবদুস ছক্তারের স্ত্রী। নিহতের পরিবার সূত্র জানায়, উপজেলা বিশ্বম্ভরপুরের গড়েরগাঁও গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে স্ত্রী মদিনা বেগম গত ৭ ফেব্রুয়ারি নিখোঁজ হন। সে সময় স্বামী পাথর শ্রমিক আবদুস ছাত্তার সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারিতে কাজ করছিলেন। নিখোঁজের খবর পেয়ে পর দিন বাড়ি ফিরে স্ত্রীর খোঁজ করেন তিনি। কিন্তু কোথাও তাকে পাওয়া যায়নি।

শনিবার বিকালে উপজেলার গড়েরগাঁও গ্রামের পার্শ্ববর্তী লতারগাঁও পশ্চিমপাড়ার সবজি ক্ষেতে মাটির নিচে দেবে থাকা একটি ওড়নার অংশ দেখা যায়। এর পর ওড়না টানতে গিয়ে এক নারীর মরদেহ দেখে থানা পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পুলিশ ওই দিন সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে। এরপর পরিবারের লোকজন মরদেহটি নিখোঁজ মদিনা বেগমের বলে শনাক্ত করেন।

পরে রাতে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। নিহতের স্বামী শ্রমিক আবদুস ছাক্তার বলেন, আমার ধারণা পরিকল্পিতভাবে আমার স্ত্রীকে অজ্ঞাতনামা ঘাতকরা হত্যার পর মাটি চাঁপা দিয়ে মরদেহ গুমের চেষ্টা করেছে।

বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, ওই গৃহবধূ পরিকল্পিত হত্যার শিকার হয়েছেন। এ ছাড়া এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে জড়িতদের শনাক্তকরণে পুলিশ ব্যাপক তদন্তে নেমেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close