বিশ্বনাথে ইউনিয়ন কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব ছাত্রলীগের দুই নেতাকে মারধর

সিলেটের বিশ্বনাথে তিন ইউনিয়নে ছাত্রলীগের কমিটি গঠন নিয়ে দ্বন্ধের জেরে এবার উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শীতল বৈদ্য গ্রুপের দুই নেতাকে পিটিয়ে আহত করেছে তারই গ্রুপের ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। আহতরা হলেন- কলেজ ছাত্রলীগ নেতা রাকু মালাকার (২৩) ও জুবায়ের আহমদ (২৪)।

খবর পেয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের দু’জনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দিয়েছে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ। শনিবার বিকেলে বিশ্বনাথ সরকারি ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে ওই দুই ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে আহত করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শীতল বৈদ্যের অভিযোগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের ইন্ধন আর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক শাহ বুরহান আহমদ রুবেলের নেতৃতত্বে ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহমদ খান, শামীম আহমদ, শিপন আহমদ, কয়েছ আহমদসহ বেশ কয়েকজন তার গ্রুপের নেতাদের উপর হামলা করেছেন।

তবে, কলেজ ক্যাম্পাসে দুই ছাত্রলীগ কর্মী হামলার ঘটনায় তিনি জড়িত নন বলে দাবি করেছেন শাহ বুরহান আহমদ রুবেল। তিনি বলেন, খবর পেয়ে তিনি কলেজ ক্যাম্পাসে গিয়েছিলেন।

জানাগেছে, গত ১৩ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার লামাকাজি, দেওকলস ও দৌলতপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শীতল বৈদ্য ও সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন। ওই কমিটি তিনটিতে সভাপতি সম্পাদকের স্বাক্ষর থাকলেও উপজেলা সভাপতি শীতল বৈদ্যকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে তার বিরুদ্ধে ঝাড়ু ও জুতা হাতে বিক্ষোভ মিছিল করেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ওইদিন রাতে উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহ বুরহান আহমদ রুবেলের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। আর ওই কমিটি গঠন নিয়ে দ্বন্ধের জেরে শনিবার কলেজ ক্যাম্পাসে সভাপতি শীতল গ্রুপের দুই ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে আহত করেন তারই গ্রুপের নেতারা।

বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) রমাপ্রসাদ চক্রবর্তী বলেন, কলেজ ক্যাম্পাসে মারধরের ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close