ধলাই নদীর ২২ স্থানে চর খনন কাজের উদ্বোধন

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার নদীর চর অপসারণের খনন কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৪টায় কমলগঞ্জ পৌরসভার আলেপুর এলাকায় ২২টি স্থানে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড বন্যা সমস্যা থেকে উত্তরণে ও ধলাই নদীর স্বাভাবিকতা ফিরিয়ে আনতে চর অপসারণ শুরু কাজের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. এম এ শহীদ।

চর অপসারণ শুরু কাজের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. এম শহীদ।

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, ৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩টি প্যাকেজে ঢাকার আরাধনা এন্টারপ্রাইজ চর অপসারণ কাজ করছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ধলাই নদীর বিভিন্ন স্থানে ২২টি বড় চর অপসারণ কাজ চলমান রয়েছে। এই কাজের জন্য গত বছরে কাজের নির্দেশনাপত্র হলেও নানা জটিলতায় কিছুটা বিলম্বে গত ডিসেম্বর মাসে আংশিক কাজ শুরু হলেও শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকালে কমলগঞ্জ পৌরসভার আলেপুর (উজিরপুর) এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে কাজের উদ্বোধন করেন সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. এম এ শহীদ।

আঁকাবাঁকা ও ইউ আকৃতির ধলাই নদে অসংখ্য চর দেখা দিয়েছে। ফলে বর্ষা মৌসুমে পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। অল্প বর্ষণেই উজানের পাহাড়ি ঢলে ধলাই নদী ফুলে ফেঁপে উঠে। প্রবল স্রোতে বাঁক ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে ভাঙন দেখা দেয়। নদীর ভাঙনে বাড়িঘর, ফসলি জমি ও গ্রাম্য রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এ কারণেই ধলাই নদীকে কেউ কেউ কমলগঞ্জবাসীর দুঃখ হিসেবে মনে করেন।

কৃষকদের দীর্ঘদিনের দাবি এই নদী খনন ও সংস্কারের। বিগত বছরে বর্ষা মৌসুমে নদীর একাধিক স্থানে ভাঙন ও বাঁধের বেশ কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে ফাটল দেখা দেয়।

বাংলাদেশের ৬৪টি জেলার খাল, জলাশয়, ও নদী পুনর্খনন প্রকল্পের (১ম পর্যায়) আওতায় কমলগঞ্জের ধলাই নদীর ২২টি স্থানের চর অপসারণ কাজের শুভ উদ্বোধন হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open