কাতারে মেয়র আরিফ ও নাসের রহমানকে সংবর্ধনা

জালালাবাদ এসোসিয়েশন কাতারের উদ্যোগে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং প্রয়াত অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের পুত্র এম নাসের রহমানকে সংবর্ধনা প্রধান করা হয়েছে। গতকাল কাতারের রাজধানী দোহার একটি অভিজাত রেষ্টুরেন্টে এই জমকালো সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জালালাবাদ এসোসিয়েশন সহ কাতার ভিত্তিক বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


জালালাবাদ এসোসিয়েশন কাতারের সভাপতি কফিল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি এম নাসের রহমান।


এসোসিয়েশন সদস্য হাফিজ আমিনুল ইসলামের পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যম দিয়ে সুচিত এবং মোঃ সিরাজুল ইসলাম শাহীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কাতার সফররত বড়লেখা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ, বড়লেখা সুজানগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নছিব আলী, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, আবু তাহের চৌধুরী, এসোসিয়েশনের সিনিয়র সদস্য শরিফুল হক সাজু।


অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সিনিয়র সভাপতি রুহেল কবির, যুগ্ম সম্পাদক আহমেদ মালেক, পংকি মিয়া, মামুন আহমদ নুর, শিপার আহমেদ শিমু, শাহজাহান রাজু, কাতারস্থ ভাটেরা ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান উপদেষ্ঠা মোঃ শিপার আহমদ, সভাপতি আব্দুল মালিক তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম প্রমূখ।


সংবর্ধনার জবাবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমি বিএনপির দলীয় প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেছি এবং আমি মেয়র হয়েছি। কিন্তু এখন আমি আর দলের মেয়র নই।

আমি সকল দল মতের মানুষের মেয়র। দল-মতের উর্ধ্বে উঠে আধুনিক সিলেট নগরী গড়তে সকলের সহযোগিতা চাই। বিএনপির মেয়র হলেও আমি নগরীর উন্নয়নে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত সাহেবের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা পেয়েছি। বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে মোমেন সাহেবের সহযোগিতা পেয়ে সিলেট নগরীর উন্নয়নে আমরা মেগা প্রজেক্ট বাস্থবায়ন করতে পারছি। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় আমরা সিলেটকে আধুনিক ও আধ্যাত্মিক নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।

সিলেটে বিশ^মানের এবং দেশের সবচেয়ে সুন্দর ও সর্ববৃহৎ বাসস্ট্যান্ড নির্মানের কাজ চলছে।
তিনি আরো বলেন, কাতারস্থ সিলেটবাসীর ভালবাসায় আমি মুগ্ধ আবেগাপ্লুত। কাতার প্রবাসী ভাইদের জন্য সিলেট সিটি কর্পোরেশনের দরজা সব সময় খোলা রয়েছে। আপনারা সিলেটে কিছু করতে চাইলে সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। ওসমানী বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানীর জন্য আমরা দুঃখিত। বিমানবন্দর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন না থাকায় সেখানে আমাদের করণীয় তেমন কিছু নেই।

তবুও প্রবাসীদের হয়রানী বন্ধে আমি সব সময় স্বোচ্ছার ছিলাম আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো। ইনশাআল্লাহ।বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open