সুনামগঞ্জের কিশোরীকে ভৈরবে গণধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

সুরমা টাইমস ডেস্ক :: কিশোরগঞ্জের ভৈরবে রিকশা থেকে নামিয়ে কিশোরীকে (১৩) গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত অপু ওরফে বাবু (১৮) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব-১৪। রবিবার (২৬ জানুয়ারি) দিবাগত গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। আটক অপু ভৈরবের জগন্নাথপুর গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। কিশোরী গণধর্ষণের মূলহোতা অপু।

র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে ভৈরবের জগন্নাথপুর এলাকা থেকে কিশোরী গণধর্ষণের মূলহোতা অপুকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে অপু জানিয়েছে ভৈরবের কয়েকজন ছিনতাইকারীর নেতৃত্বে চুরি-ডাকাতি ও রেলস্টেশনের যাত্রীদের মোবাইল, স্বর্ণালঙ্কার টাকা-পয়সা ছিনতাই করে তারা। মাঝেমধ্যে ধর্ষণ ও গণধর্ষণের মতো অপরাধে জড়ায়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৫ জানুয়ারি রাতে ভৈরব রেলস্টেশনের সিগন্যালের কাছে তাঁতারকান্দি এলাকায় রিকশা থেকে নামিয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণ করে তারা পাঁচজন। পরে সেখানে কিশোরীকে রেখে পালিয়ে যায় তারা।

১৫ জানুয়ারি রাতে ভৈরব বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নামার পর ওই কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়। খালার সঙ্গে রাগ করে টঙ্গী থেকে বাসে উঠে রাত সাড়ে ৮টায় ভৈরবে পৌঁছে কিশোরী। তার বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায়। সে তার খালার বাসা টঙ্গীতে থাকতো। টঙ্গী থেকে ভৈরব হয়ে সুনামগঞ্জের দিরাই যাওয়ার কথা ছিল তার। ওই দিন রাতে বাসস্ট্যান্ডে যাওয়ার জন্য একটি রিকশায় উঠলে তাকে তুলে নিয়ে যায় পাঁচ যুবক।

ওই রাতেই ভৈরব রেলস্টেশনের কাছে কিশোরীকে গণধর্ষণ করে তারা। এ ঘটনায় ভৈরব রেলওয়ে থানায় মামলা করা হয়। এরই মধ্যে কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয় কিশোরী। আদালতের আদেশে বর্তমানে টঙ্গীর কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে রয়েছে কিশোরী।

Sharing is caring!

Loading...
Open