দক্ষিণ সুরমায় আটক ছিনতাইকারীকে জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে গেলো সহযোগীরা !

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

নগরীর শাহজালাল উপশহর এলাকায় বোনের বাসা থেকে মাকে নিয়ে বিয়ানীবাজার ফিরে যাবার সময় ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন মা ও ছেলে। ধাওয়া দিয়ে একজনকে আটক করার পরও তার সহযোগী ছিনতাইকারীরা হুমকি দিয়ে তাকে নিয়ে যায়।
জকিগঞ্জের নজরুল ইসলাম শাহজালাল উপশহরস্থ বোনের বাসা থেকে বৃদ্ধ মা ও বোন- ভাগিনাকে নিয়ে সিএনজি অটোরিকশায় বিয়ানীবাজার ফিরছিলেন। রাত প্রায় পৌনে ৯ টায় জকিগঞ্জ সড়কের গোটাটিকর এলাকার সুন্দরবন কমিউনিটি সেন্টারের সামনে পৌঁছলে পেছন থেকে একটি মোটরসাইকেলে ২জন অটোরিকশার ডান দিকে আসে। মোটরসাইকেলের পেছনে থাকা যুবক অটোরিকশার ডান পাশে বসা নজরুল ইসলামের মা গুলশানা মরিয়মের (৬০) হাতে থাকা হাতব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ওই ব্যাগে ৬টি আংটি, গলার হার, গলার চেইন, ২ টি হাতের বালা, ১ জোড়া কানের দুল এবং মূল্যবান দুটি মোবাইল ফোন ছিল।
এসময় দ্রুতগতিতে অটোরিকশা চালিয়ে মোটরসাইকেলকে ধাওয়া করা হয়। হবিনন্দী স্কুলের দোকানের সামনে ছিনতাইকারীরা মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। ফেলে যাওয়া মোটরসাইকেল আটক করা হলে জুয়েল (২৯) নামক ব্যক্তি এগিয়ে এসে গাড়িটি তার বলে দাবি করে। নজরুল ইসলাম এসময় জুয়েলকে ধরে ছিনতাইকারী বলে চিৎকার দিতে থাকেন। এতে আশপাশের লোকজন আসতে দেখলে ছিনতাইকারীদের অন্য সহযোগীরা জুয়েলকে ছেড়ে দিতে বলে। নজরুল এতে সম্মত না হওয়ায় রানা (৩৫) নামক ব্যক্তি তাকেসহ সবাইকে মারধরের হুমকি দেয়। নজরুল ইসলাম তাদের হুমকিতে এবং সঙ্গে থাকা বৃদ্ধ মা এবং বোন-ভাগিনার নিরাপত্তার জন্যে আটক জুয়েলকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হন। তিনি এসময় তার আত্মীয়স্বজনদের ফোন করে বিষয়টি জানান। আত্মীয়স্বজন ও পুলিশ আসতে দেখে জুয়েলসহ তার সহযোগী ছিনতাইকারীরা মোটরসাইকেল নিয়ে চলে যায়। নজরুল ইসলাম অদ্য বুধবার মোগলাবাজার থানায় এ ব্যাপারে লিখিত একটি অভিযোগ দেন। যাহার অভিযোগ নং :- ০৯ , ২২/০১/২০২০ইং ,ধারা- ৩৯২ দঃবি ।

Sharing is caring!

Loading...
Open