৬৫ বছরের প্রেমময় সম্পর্ক,হাতে-হাত রেখে,স্বামী-স্ত্রীর,মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে এক দম্পতির মৃত্যু যেন প্রেমের মহাকাব্যকেও হার মানিয়েছে। জ্যাক মরিসন (৮৬) ও হ্যারিয়েট মরিসন (৮৩) একসঙ্গে সংসার করেছেন ৬৫ বছর। একবারের জন্যও তারা কেউ কাউকে ছেড়ে যাননি। এই যুগলের মৃত্যুও হয়েছে একইদিনে, কয়েকঘণ্টার ব্যবধানে, ‘হাতে হাত রেখে’। তাদের বাড়ি মিসৌরিতে। খবর ফক্স নিউজের।

সে ১৯৫৫ সালের কথা। হ্যারিয়েট ও তার বাবাকে বাস চালিয়ে গন্তব্যে পৌঁছে দিচ্ছিলেন জ্যাক। তখনই জ্যাক-হ্যারিয়টের পরিচয়। এর পর হ্যালোইনে তারা প্রথম ‘ডেট’ করেন। ছয় মাস পর তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। পরবর্তীতে তাদের সংসার জীবন কেটেছে ভি-কে বাসলাইনে কাজ ও দুই ছেলেকে লালন পালন করে।

তাদের স্বজনরা জানান, এই যুগল সবসময়ই একসঙ্গে থাকতেন। তাদের কখনো আলাদা দেখতে পাওয়া যায়নি। প্রতিদিন সকালে জ্যাক আগে ঘুম থেকে উঠতেন। কফি বানিয়ে দিতেন হ্যারিয়েটকে। তারা ইউরোপ-অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশে ঘুরেও বেড়িয়েছেন। একজন ছাড়া তাদের অন্যজনের কখনো দেখা মিলত না।

প্রায় একবছর আগে হ্যারিয়েট হাঁটতে গিয়ে পড়ে যান এবং মেরুদণ্ডে আঘাত পান। পরবর্তীতে তার ভুলে যাওয়া রোগ (ডিমেনশিয়া) হয়। তাকে নিয়ে যাওয়া হয় উলড্যান্ডস এর নার্সিং হোম ও রিহ্যাব সেন্টারে। সেপ্টেম্বরেও জ্যাক পড়ে গিয়ে গলায় আঘাত পান। তিনি বাসাতেই বিছানায় শয্যাশায়ী ছিলেন। নার্সিং হোম ও তাদের বাড়ির অবস্থান ছিল একেবারেই পাশাপাশি।

তাদের এক আত্মীয়, ওয়েগনার জানান, ক্রিসমাস থেকেই হ্যারিয়েট খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দেন।

১০ জানুয়ারি রাত ১১টার দিকে নার্সিং হোম থেকে জানানো হয় হ্যারিয়েটের মৃত্যু আসন্ন। এক নার্স বলেন, পরিবার চাইলে জ্যাকের বিছানার পাশেই হ্যারিয়েটকে রাখা হবে। ওয়েগনার সম্মতি জানিয়ে বললেন, হ্যারিয়েটের শেষ সময়ে তা অসামান্য পাওয়া হয়ে থাকবে।

এরপর জ্যাক-হ্যারিয়েট হাতে হাত রেখে শেষ কিছু সময় কাটান। ওই দিনই প্রথম মারা যান জ্যাক মরিসন, দুপুর ৩টা ৩৪ মিনিটে এবং রাত ১১ টা ৫৩ মিনিটে মারা যান হ্যারিয়েট মরিসন। তাদের পাশাপাশি সমাহিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তাদের আরেক সন্তান জন জে মরিসনের সঙ্গে। ২০০৭ সালে জন জে ক্যানসারে মারা যান।

Sharing is caring!

Loading...
Open